kalerkantho

লাকসাম থেকে চুরি শিশু মনোহরগঞ্জে উদ্ধার

লাকসাম (কুমিল্লা) প্রতিনিধি   

২৫ আগস্ট, ২০১৯ ২১:৫৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



লাকসাম থেকে চুরি শিশু মনোহরগঞ্জে উদ্ধার

কুমিল্লায় লাকসাম থেকে চুরি হওয়া ১১ মাস বয়সী শিশু রোববার ভোরে উদ্ধার হয়েছে পাশের মনোহরগঞ্জ উপজেলায়। সেখানে ঝলম (উত্তর) ইউনিয়নের কেশতলা গ্রামের একটি মসজিদের পাশ থেকে পরিত্যক্ত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করা হয়। শিশু চোর তাকে সেখানে ফেলে গেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। বিয়ের চেৌদ্দ বছর পর শফিক ও সালমা দম্পতি গতবছর বাবা মা হন। একমাত্র সন্তান হারিয়ে তারা নির্বাক হয়ে পড়েছিলেন। ২৪ ঘন্টা পর হারানো সন্তান ফিরে পেয়ে তারা আনন্দে চোখের জলে ভাসেন।

শনিবার ভোর রাতে লাকসাম উপজেলার মুদাফরগঞ্জ (দক্ষিণ) ইউনিয়নের শ্রীয়াং দক্ষিণ পাড়ার শফিকুর রহমানের ১১ মাস বয়সী ছেলে মাসুদুর রহমানকে চুরি করে নিয়ে যায় দুবৃর্ত্তরা। এরপর শিশুকে ফেরত পাওয়া গেছে প্রায় ২৪ ঘন্টা পর কুমিল্লার কেশতলা গ্রামের মসজিদের পাশে। ফজরের নামাজ পড়তে উঠে মুসল্লীরা শিশুর কান্নার শব্দ শুনতে পান। পরে তাকে উদ্ধার করে পুলিশে খবর দেওয়া হয়।

লাকসাম থানার ওসি মো.নিজাম উদ্দিন বলেন, 'চুরি হওয়া শিশুটিকে উদ্ধারের পর রোববার আদালতের মাধ্যমে মা-বাবার কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।'

শিশুর বাবা শফিকুর রহমান জানান, রাতের খাবার খেয়ে স্ত্রী ও শিশু সন্তান নিয়ে ঘুমিয়ে ছিলেন। শনিবার ভোর অনুমান সাড়ে তিনটার দিকে কৌশলে ঘরের দরজা খুলে চোর ভিতরে ঢোকে। এরপর শিশু সন্তানকে চুরি করে পালিয়ে যায়। বিভিন্ন জায়গায় খোঁজাখুঁজি করা হয়। কিন্তু সন্তানের কোনো সন্ধান মেলেনি। এ অবস্থায় তিনি লাকসাম থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দাখিল করেন। তারপর শিশু ফেরত পাওয়া গেছে দূরবর্তী স্থানে পরিত্যক্ত অবস্থায়।

শিশুটির মা সালমা বেগম বলেন, '১৫ বছরের দাম্পত্য জীবনে এটিই প্রথম সন্তান। নানা চিকিৎসার পর ১১ মাস আগে কোলজুড়ে এই পুত্র সন্তানটি আসে। তাকেই হারিয়ে ফেলেছিলাম।'

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা