kalerkantho

শনিবার । ১১ আশ্বিন ১৪২৭ । ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০। ৮ সফর ১৪৪২

রূপগঞ্জে জিসান হত্যাকাণ্ড

বিচারের দাবিতে শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন

এলাকায় আতঙ্ক

রূপগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি   

২৫ আগস্ট, ২০১৯ ০২:৩৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বিচারের দাবিতে শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে জিসান হোসেন (১৬) নামে নবম শ্রেণির এক শিক্ষার্থীকে পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় এলাকায় আতঙ্ক বিরাজ করছে। অন্যদিকে পেরাব আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা ক্লাস বর্জন করে জিসানের খুনিদের দ্রুত গ্রেপ্তার করে ফাঁসির দাবিতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করেছে। গত বৃহস্পতিবার দুপুরে গোলাকান্দাইল এলাকায় জিসানকে পিটিয়ে গুরুতর আহত করার পরদিন শুক্রবার সকালে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে মারা যায় সে।

নিহত জিসান সূত্রাপুর থানার ধোলাইখাল রাশাবাজার এলাকার গোপাল হোসেনের ছেলে। স্থানীয় পেরাব আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ে পড়ত সে। জিসানের বাবা গোপাল হোসেন তাঁর পরিবার নিয়ে রূপগঞ্জ উপজেলার কান্দাপাড়া এলাকায় বসবাস করছেন।

নিহতের পরিবার ও এলাকাবাসী জানায়, গত বৃহস্পতিবার সকালে নাগেরবাগ বউবাজার এলাকার হূদয় হাসান শুভ ও তার বন্ধু স্কুলছাত্র জিসান হোসেনকে নিয়ে গোলাকান্দাইল মধ্যপাড়া এলাকায় সাহাবুদ্দিন স্কুলের মাঠে ক্রিকেট খেলা দেখতে যায়। পূর্বশত্রুতার জেরে গোলাকান্দাইল মধ্যপাড়া এলাকার সৌরভসহ তার ছোট ভাই সিয়াম, বিদ্যুৎ, ইকরাম, শাওন, রোহান, আলামিন, নিরব, আরমান, ইমন, সাকিব, হূদয়, ইয়ামিন, ফাহিম, মাসুম, মোস্তাকিমসহ আরো কয়েকজন সন্ত্রাসী হূদয় হাসান শুভ ও জিসান হোসেনকে জোর করে উঠিয়ে নিয়ে গোলাকান্দাইল হাটসংলগ্ন ঈদগাহ বালুর মাঠে রড ও কাঠ দিয়ে পিটিয়ে শরীর থেঁতলে দেয়। 

খবর পেয়ে পরিবারের লোকজন তাকে মুমূর্ষু অবস্থায় ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে চিকিত্সাধীন অবস্থায় শুক্রবার সকালে জিসান মারা যায়। ঘটনার পর থেকে হত্যার সঙ্গে জড়িতরা এলাকায় মহড়া দিয়ে আতঙ্ক সৃষ্টি করে। এলাকাবাসী জানায়, এই সন্ত্রাসীরা ছাত্রলীগের নাম ভাঙিয়ে এলাকায় চাঁদাবাজি, ছিনতাই, জমি দখলসহ সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড চালিয়ে আসছে।

খুনিরা প্রভাবশালী হওয়ায় মামলা করার সাহস পাচ্ছে না নিহতের পরিবার। ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল থেকে জিসানের লাশ জুরাইন কবরস্থানে দাফন করা হয়।

ভুলতা পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ ইন্সপেক্টর শহিদুল ইসলাম বলেন, নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে মামলা করলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা