kalerkantho

পেকুয়ায় চাঁদা না পেয়ে ৫ জনকে কুপিয়ে জখম

চকরিয়া (কক্সবাজার) প্রতিনিধি   

২৪ আগস্ট, ২০১৯ ২১:৪১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পেকুয়ায় চাঁদা না পেয়ে ৫ জনকে কুপিয়ে জখম

কক্সবাজারের পেকুয়ায় একটি পরিবারের ৫ সদস্যকে কুপিয়ে জখম করেছে সন্ত্রাসীরা। চাঁদাবাজ চক্র দাবি করা টাকা না পেয়ে ও অভিযোগ করায় শনিবার সকালে হামলা চালায় বলে স্বজনরা জানান। শিলখালী ইউনিয়নের হাজিরঘোনায় এই সন্ত্রাসী হামলার ঘটনা ঘটে। আহতরা হলেন- পেকুয়া নূর ডেন্টাল কেয়ারের চিকিৎসক  শফিকুল ইসলাম (৩০), তার ভাই ইসলামী ব্যাংক চট্টগ্রাম মহানগরীর বহদ্দার হাট শাখার কর্মকর্তা মনিরুল ইসলাম (৪০), মো. ইউনুছ (৪২) ও তার স্ত্রী হাফছা বেগম (৩০), তাদের মা বৃদ্ধ জমিলা আক্তার (৬০)।

আহত শফিকুল ইসলাম জানান, শিলখালীর সাকোর পাড় স্টেশনে তাদের তিনটি দোকানঘর রয়েছে। এসব দোকানঘর পৃথক তিনজনকে ভাড়া দেওয়া। হাজিরঘোনা এলাকার নাঈম নামের এক ব্যক্তি এ নিয়ে মোটা অংকের চাঁদা দাবি করে আসছিল। বিষয়টি শিলখালী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানকে লিখিতভাবে অবহিত করলে সন্ত্রাসীরা ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে। তারা অভিযোগ নিস্পত্তি করতে পরিষদে হাজির না হয়ে একটি দোকানঘর দখলে নিয়ে নেয়। এরপর থানায় লিখিত অভিযোগ দিলেও আরো ক্ষতির হুমকি দেয়। শুক্রবার দখলদাররা একদফা হামলা করে বাড়িতে। তারা নগদ টাকাসহ মালামাল লুট করে। শনিবার ফের হামলা চালায় ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে। এ সময় ধারালো অস্ত্রের আঘাতে গুরুতর জখম হন তিন ভাইসহ অন্যরা।

শিলখালী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান নুরুল হোছাইন বলেন, 'দন্ত চিকিৎসক শফিকুল ইসলামের করা অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে নাঈমসহ অভিযুক্তদের নোটিশ দেওয়া হয়। কিন্তু তারা হাজির না হওয়ায় অভিযোগের সুরাহা হয়নি।'
পেকুয়া থানার ওসি মো. জাকির হোসেন ভূঁইয়া বলেন, ‘হামলার বিষয়টি জানার পর ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। লিখিত অভিযোগ পেলে হামলায় জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

আহতদের মধ্যে দুইজনকে মুমূর্ষ অবস্থায় চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। অন্যরা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি রয়েছেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা