kalerkantho

নিজ শরীরে আগুন ধরিয়ে দিল গৃহবধূ

ধুনট (বগুড়া) প্রতিনিধি   

২৩ আগস্ট, ২০১৯ ২২:৪৯ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নিজ শরীরে আগুন ধরিয়ে দিল গৃহবধূ

প্রতীকী ছবি

বগুড়ার ধুনট উপজেলায় পারিবারিক কলহের জের ধরে ববি খাতুন (২৫) নামে এক গৃহবধূ নিজের শরীরে কেরোসিনের তেল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছে। ববি খাতুন উপজেলার ভান্ডারবাড়ি ইউনিয়নের ভুতবাড়ি গ্রামের বেলাল হোসেনের স্ত্রী। শুক্রবার দুপুর ১টার দিকে ভুতবাড়ি গ্রামে স্বামীর বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, হতদরিদ্র বেলাল হোসেন পেশায় একজন কাঠমিস্ত্রি। চাপাইনবাবগঞ্জ এলাকায় কাঠের আসবাবপত্র তৈরিকালে ববির সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। প্রেমের সম্পর্ক থেকে প্রায় ৮ বছর আগে ববি খাতুনকে বিয়ে করে। তাদের দাম্পত্য জীবনে দুই সন্তানের জন্ম হয়। বিয়ের পর তাদের দাম্পত্য জীবন সুখেই কাটতে ছিল।

জীবিকার তাগিদে স্ত্রীকে ভুতবাড়ি গ্রামে মায়ের কাছে রেখে বেলাল হোসেন টাঙ্গাইল এলাকায় কাজ করে। ঈদের ছুটিতে সে বাড়িতে এসেছে। পারিবারিক বিভিন্ন বিষয়াদি নিয়ে বউ-শাশুড়ির মাঝে প্রায়ই ঝগড়া-বিবাদ হয়। এ অবস্থায় শুক্রবার দুপুরের দিকে বউ ও শাশুড়ির মাঝে বিরোধের সৃষ্টি হয়।

একপর্যায়ে শাশুড়ির ওপর ক্ষুব্ধ হয়ে ববি খাতুন নিজের শরীরে কেরসিন তেল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করে। এতে তার শরীরের ৪০ শতাংশ ঝলছে গেছে। তাকে উদ্ধার করে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এ বিষয়ে বেলাল হোসেন বলেন, বিয়ের পর থেকেই আমার মায়ের সঙ্গে স্ত্রীর ঝগড়া বিবাদ হয়। অনেক চেষ্টা করেও তাদের মধ্যে সমঝোতা করা সম্ভব হয়নি। শুক্রবার দুপুরের দিকে ঝগড়ার এক পর্যায়ে আমার স্ত্রী নিজের শরীরে কেরোসিন তেল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়। তাকে চিকিৎসার জন্য বগুড়া হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

ধুনট থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) ইসমাইল হোসেন বলেন, এ ঘটনাটি কেউ আমাকে অবগত করেনি। তারপরও খোঁজ-খবর নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা