kalerkantho

অবশেষে নবীনগরে ৭১ কোটি টাকা ব্যয়ে বেড়িবাঁধ নির্মাণ হচ্ছে

কষ্টে থাকা মানুষেরা খুশীতে আত্মহারা

নবীনগর (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি   

২২ আগস্ট, ২০১৯ ২৩:১৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



অবশেষে নবীনগরে ৭১ কোটি টাকা ব্যয়ে বেড়িবাঁধ নির্মাণ হচ্ছে

‘হুনছি, আমাগো নদীর পাড়ে নাকি ম্যালা টেহা খরচ কইরা সরকার শিগগির বাদ (বেড়িবাঁধ) তৈয়ার কইরা দিতাছে। হে আল্লাহ, আমাগো কষ্ট আর কান্দনের দিন বোধয় শেষ হইয়া আইলো। এমুন একটা সুখবরের জন্য আমরা শেখের বেডির (প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা) লাইগ্যা আল্লাহর কাছে দুই হাত তুইল্যা দোয়া করি’।

গত মঙ্গলবার একনেকের সভায় ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলার মেঘনা নদীর তীরবর্তী পশ্চিমাঞ্চলের কয়েকটি গ্রামের ভাঙন রোধকল্পে সরকার ৭১ কোটি টাকা বরাদ্দ দিয়েছে, এমন খবর লোকজনের কাছে শুনে সোনাবালুয়া গ্রামের মেঘনা পাড়ের বাসিন্দা আবদু মিয়া (৭২) কালের কণ্ঠের কাছে আজ বৃহস্পতিবার এভাবেই কথাগুলো বলছিলেন।

নদীভাঙন কবলিত সহায় সম্বলহীন মানুগুলোর জীবন ও মালের নিরাপত্তায় অবশেষে কোটি কোটি টাকা ব্যায়ে নদী ভাঙন রোধে এলাকায় বেড়িবাঁধ নির্মিত হচ্ছে, এমন খবরে নদীভাঙনে ভয়াবহভাবে ক্ষতিগ্রস্ত মানুষগুলোর চোখে মুখে এখন আনন্দের অশ্রু বইছে।

জানা যায়, উপজেলার পশ্চিমাঞ্চলের নদী তীরবর্তী বড়িকান্দি, নূরজাহানপুর, সোনাবালুয়া, মুক্তারামপুর, ধরাভাঙা এলাকায় নদী পাড়ে ভাঙনরোধ কল্পে বর্তমান সাংসদ এবাদুল করিম বুলবুলের নেওয়া বেড়িবাঁধ নির্মাণ প্রকল্পটি অবশেষে গত মঙ্গলবার একনেকের সভায় অনুমোদিত হয়।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে ওই সভায় যে ১২টি গুরুত্বপূর্ণ প্রকল্প অনুমোদন দেওয়া হয় এরমধ্যে নবীনগরের নদী ভাঙন রোধকল্পে বেড়িবাঁধ নির্মাণের প্রকল্পটিও রয়েছে। এই বেড়িবাঁধ নির্মাণে ব্যায় ধরা হয়েছে ৭১ কোটি ৯ লাখ ৯৫ হাজার টাকা।

নদীভাঙন কবলিত এলাকার বাসিন্দা আঙ্গুরের নেছা বেগম, অহিদ মিয়া, আবদুল আলিমসহ একাধিক ক্ষতিগ্রস্ত লোকজন জানান, স্বাধীনতার পর এই এলাকার এমন বহু মানুষ রয়েছে যাদের বাড়ি ঘর ২/৩ বার করে নদীভাঙনে বিলীন হয়ে গেছে। বারবার নদীগর্ভে সবকিছু হারিয়ে অনেকেই আজ নিঃস্ব হয়ে গেছে। এখন বেড়িবাঁধটি নির্মিত হলে মানুষের দীর্ঘদিনের নিদারুণ কষ্ট দূর হবে।

এ বিষয়ে বর্তমান সংসদ সদস্য এবাদুল করিম বুলবুল বৃহস্পতিবার দুপুরে কালের কণ্ঠকে বলেন, এটি আমার নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি ছিল। এলাকার অসহায় মানুষগুলোর কষ্ট দূর করতে বেড়িবাঁধটি নির্মাণে অবশেষে ৭১ কোটি টাকার যে প্রকল্পটি একনেকে অনুমোদিত হয়েছে সেজন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে আমি কৃতজ্ঞতা জানাই। পাশাপাশি ধন্যবাদ জানাই এর সঙ্গে জড়িত সংশ্লিষ্ট সবাইকে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা