kalerkantho

চান্দিনায় ধর্ষণের অভিযোগে মামলা, আটক ২

চান্দিনা (কুমিল্লা) প্রতিনিধি   

২১ আগস্ট, ২০১৯ ২১:৪৪ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



চান্দিনায় ধর্ষণের অভিযোগে মামলা, আটক ২

কুমিল্লার চান্দিনায় ধর্ষণের অভিযোগে অলিউল্লাহ (৫৫) ও নূরে আলম (৩২) নামে দুইজনকে আটক করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় ৩০ বছর বয়সী দুই সন্তানের জননী বিধবা নারী বাদী হয়ে চান্দিনা থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

আটক অলিউল্লাহ চান্দিনা উপজেলার কুদুটি গ্রামের মৃত আলী মিয়ার ছেলে এবং আটক নূরে আলম চাঁদপুর জেলার কচুয়া উপজেলা তুলপাই গ্রামের আব্দুল কবির মিয়ার ছেলে।

সোমবার (১৯ আগস্ট) রাতে চান্দিনার জোয়াগ ইউনিয়নের ধেরেরা গ্রামের একটি খোলা মাঠে ওই নারীকে পালাক্রমে ধর্ষণ করে বলে অভিযোগ করেন তিনি। বুধবার (২১ আগস্ট) বিকেলে ধর্ষণের অভিযোগে থানায় মামলা নেয় পুলিশ। 

ভুক্তভোগী ওই নারী জানান, স্বামীর মৃত্যুর পর মা-বাবার সঙ্গে চাঁদপুর জেলার কচুয়া উপজেলার কান্দিরপাড় গ্রামে বসবাস করতেন। প্রায় ৪ মাস পূর্বে মোবাইল ফোনে পরিচয় ঘটে চান্দিনার কুদুটি গ্রামের অলিউল্লাহর সঙ্গে। অলিউল্লাহ তাকে বিয়ে করার প্রস্তাব দেওয়ায় ওই নারী তার প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেন। পরবর্তীতে ভাই-বোনের সম্পর্ক গড়ে তুলেন। 

গত ১৫ দিন আগে নূরে আলমকে বিয়ে করতে প্রস্তাব করেন অলিউল্লাহ। তাদের মধ্যে বুঝাপড়া শেষে সোমবার বিয়ে করতে কুমিল্লার কাজী অফিসে যাওয়ার কথা বলে একটি আবাসিক হোটেলে উঠেন তারা। ওই হোটেলে অবস্থানরত অবস্থায় পুলিশ ওই হোটেলে অভিযান চালিয়ে দেহ ব্যবসার অভিযোগে তাদেরকে আটক করেন।

পরে তারা পুলিশের সঙ্গে সমঝোতা করে রাত ১০টায় পুলিশের হাত থেকে ছাড়া পান তারা। পরে চান্দিনায় এসে সিএনজি যোগে ধেরেরা পৌঁছেন। সেখান থেকে হেঁটে একটি খোলা মাঠে তাকে নিয়ে পালাক্রমে ধর্ষণ করে ওই দুই ব্যক্তি।

এদিকে অলিউল্লাহ ও নূরে আলম জানায়, ওই নারীর সঙ্গে সমঝোতা করেই দৈহিক সম্পর্ক হয়েছিল। পরে ওই নারী ধর্ষণের অভিযোগ করেন।

চান্দিনা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. আবুল ফয়সল জানান, ভুক্তভোগী ওই নারী মঙ্গলবার রাতে ধর্ষণের অভিযোগ করার পর অভিযান চালিয়ে তাদেরকে আটক করা হয়। বুধবার এ ঘটনায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা