kalerkantho

আসমার দাফন সম্পন্ন, প্রেমিক বাঁধন লাপাত্তা

পঞ্চগড় প্রতিনিধি   

২১ আগস্ট, ২০১৯ ১৯:৫২ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



আসমার দাফন সম্পন্ন, প্রেমিক বাঁধন লাপাত্তা

ঢাকার কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনে বলাকা কমিউটার ট্রেনের পরিত্যক্ত বগি থেকে সোমবার উদ্ধার হয়েছে মাদ্রাসাছাত্রী আসমা আক্তারের লাশ। পরিচয় নিশ্চত হওয়ার পর ঘটনা নিয়ে বাড়ছে রহস্য। কেন ও কিভাবে এ হত্যার ঘটনা ঘটেছে তা নিশ্চিত হতে পারছে না পুলিশ। তবে জানা গেছে পঞ্চগড় থেকে প্রেমিক মারুফ হাসান বাঁধনের হাত ধরে রোববার পালিয়েছিল এ শিক্ষার্থী। তাকে ধর্ষণ ও হত্যা মামলার আসামি করা হয়েছে বাঁধনকে। পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি। এদিকে বুধবার সকালে নিজ গ্রাম শিংপাড়া কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে আসমার লাশ ।

স্থানীয় সূত্র জানায়, পঞ্চগড় জেলা সদরের শিংপাড়া এলাকার কনপাড়া গ্রামের দিনমজুর আব্দুর রাজ্জাকের দ্বিতীয় মেয়ে আসমা। স্থানীয় খাঁনবাহাদুর মখলেছুর রহমান আলিম মাদ্রাসা থেকে এবার দাখিল পাস করেছে। আসমার সাথে পাশের সীতাগ্রামের আবু হানিফ ওরফে টায়ার ভুট্টোর ছেলে মারুফ হাসান বাঁধনের প্রেমের সম্পর্ক ছিল। গত রোববার তারা দুজন বাড়ি থেকে পালিয়ে যায়। পরদিন সকালে ঢাকায় কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনের বলাকা কমিউটার ট্রেনের একটি পরিত্যক্ত বগি থেকে আসমার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনার জন্য আসমার পরিবার তার প্রেমিক বাঁধনকেই দায়ী করছেন। ময়নাতদন্তে আসমাকে ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়েছে বলে মনে করছে পুলিশ। মঙ্গলবার আসমার চাচা রাজু ইসলাম বাদী হয়ে প্রেমিক বাঁধনকে প্রধান আসামি করে কমলাপুর রেলওয়ে থানায় একটি ধর্ষণ ও হত্যা মামলা করেন। এদিকে ঘটনার পর থেকেই বাঁধন পলাতক ।পুলিশ বিভিন্ন স্থানে সন্ধান চালিয়ে তাকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি। বাঁধন হত্যাকারী নাকি ভিকটিম তা নিয়েও চলছে আলোচনা।

এদিকে আইনী প্রক্রিয়াশেষে আসমার লাশ বুধবার ঢাকা থেক পঞ্চগড় পৌঁছে। সকাল ৭ টার দিকে লাশবাহী অ্যাম্বুলেন্স আসমার বাড়িতে পৌঁছলে মা বাবাসহ আত্মীয় স্বজন ও গ্রামের মানুষ কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন। শোকের ছায়া নেমে আসে পুরো গ্রামে। সকাল সাড়ে ১০টায় শিংপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। এতে পঞ্চগড়-১ আসনের সংসদ সদস্য মজাহারুল হক প্রধান, পঞ্চগড় জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার সাদাত সম্রাট, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আব্বাস আলী, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান কাজী আল তারিক ও আসমার বাবা আব্দুর রাজ্জাক বক্তব্য রাখেন। বক্তারা আসমা হত্যাকাণ্ডের নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করে হত্যাকারীদের দ্রুত গ্রেপ্তার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা