kalerkantho

চরফ্যাশনে উচ্ছেদ অভিযান, সড়ক ফাঁকা

চরফ্যাশন (ভোলা) প্রতিনিধি   

২১ আগস্ট, ২০১৯ ১৬:৫৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



চরফ্যাশনে উচ্ছেদ অভিযান, সড়ক ফাঁকা

ভোলার চরফ্যাশন উপজেলার নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. রুহুল আমিনের নেতৃত্বে র‌্যাব ও পুলিশ প্রশাসন চরফ্যাশনের গুরুত্বপূর্ণ সড়কের দু’পাশের ফুটপাত দখল করে গড়ে ওঠা অবৈধ দোকানপাট উচ্ছেদ করেছে। সড়কের পাশে জমে থাকা অতিরিক্ত পানি ও মাটি পরিষ্কারের কাজ করেছে পৌর কর্তৃপক্ষ। তাই শহর এখন যানজট মুক্ত।

আজ বুধবার সকাল থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত অভিযান চালিয়ে এগুলো উচ্ছেদ করা হয়। সড়কের রাখা একাধিক মোটরসাইকেল, বাইসাইকেলসহ বিভিন্ন ধরণের পরিবহনকে এ সময় জরিমানা করা হয়।

ফুটপাত দখল করা ব্যবসায়ী অলম বলেন, আমাদের সরিয়ে দিয়েছে কিন্তু ওই জায়গা তো হোন্ডা রিকসা দখল করে রেখেছে।

এদিন অভিযানের অংশ হিসেবে সদর রোড থেকে শুরু করে থানা রোড, শরীফ পাড়া, হাসপাতাল রোডসহ কয়েকটি সড়ক থেকে ভ্রাম্যমাণ দোকান, আম, কমলা, মালটা, পান-সিগারেট ও চায়ের দোকানসহ প্রায় শতাধিক দোকান উচ্ছেদ করা হয়েছে। ঈদের পূর্বে যানজট নিরসনে স্থানীয় সংসদ সদস্য যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি আলহাজ মো. আবদুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকবের নির্দেশে এ উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করা হয়।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. রুহুল আমিন হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, সদর রোড পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন ও দৃষ্টিনন্দন রাখতে কোনো ভ্রাম্যমাণ দোকান বসতে দেওয়া হবে না। এ ছাড়া রিকসা, ভ্যান, অটো, নসিমন, করিমন, বাইক, মাইক্রো স্বাভাবিক চলাচল ব্যতীত কোনো স্থানে দীর্ঘক্ষণ রাখা যাবে না।

এ ব্যাপারে ব্যবসায়ী মজনু বলেন, অবৈধ দোকান উচ্ছেদের ফলে সদর রোডটি যানজটমুক্ত হয়েছে এবং শহরের সৌন্দর্য বৃদ্ধি পেয়েছে। ভবিষ্যতে এ সকল অবৈধ দোকন-পাট যেন বসতে পারে সেদিকে লক্ষ্য রাখতে হবে।

হাই চয়েজ গামেন্টসের মালিক ব্যবসায়ী মনির মিয়া বলেন, লাখ লাখ টাকা খরচ করে দোকান ভাড়া নিয়েছি, অথচ দোকানের সামনে কোনো জায়গা খালি নেই। ফুটপাতের দোকান যাতে স্থায়ীভাবে উচ্ছেদ হয় সেটা দাবি ব্যবসায়ীদের।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা