kalerkantho

৪ দিন ধরে প্রেমিকের বাড়িতে অনশনে প্রেমিকা, অবশেষে বিয়ে

বাঘা (রাজশাহী) প্রতিনিধি   

১৯ আগস্ট, ২০১৯ ২০:১৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



৪ দিন ধরে প্রেমিকের বাড়িতে অনশনে প্রেমিকা, অবশেষে বিয়ে

রাজশাহীর বাঘায় বিয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে অনশনরত সেই তরুণীকে অবশেষে বিয়ে করছেন প্রেমিক মাসুদ রানা তান্না। আজ সোমবার রাত সাড়ে ৯টায় সামাজিকভাবে তাদের দেড় লক্ষ টাকা দেন মোহরনা ধার্য করে বিয়ে সম্পন্ন হওয়ার কথা রয়েছে।

জানা যায়, গত শুক্রবার বিকেলে আড়ানী ইউনিয়নের সোনাদহ গ্রামের আবদুল মতিনের ছেলে ও রাজশাহী কলেজের মাস্টার্সের ছাত্র মাসুদ রানা তান্নার বাড়িতে আসেন তার প্রেমিকা। এ সময় বিয়ে করতে রাজি হয় প্রেমিক মাসুদ রানা। পরে কৌশলে তাকে রেখে বাড়ি থেকে পালিয়ে যায়। তারপর থেকে বিয়ের দাবিতে মাসুদ রানার বাড়িতে অনশন শুরু করে। মাসুদ রানা বিয়ে না করলে আত্মহত্যা করা হুমকি দেয় তরুণী।

এ বিষয়ে দফায় দফায় আড়ানী ইউনিয়ন চেয়ারম্যানকে নিয়ে সমঝোতার বৈঠক হয়। প্রাথমিক পর্যায়ে প্রেমিককে পাওয়া না যাওয়ায় চেয়ারম্যানের পক্ষ থেকে স্থানীয় চৌকিদার ডাবলু হোসেনের জিম্মায় রাখা হয় তরুণীকে। তিনদিন পর আজ সোমবার রাত সাড়ে ৯ টায় সামাজিকভাবে তাদের বিয়ে সম্পন্ন করা হবে।

আড়ানী ইউনিয়ন চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম ও বাঘা উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নাজমুল হোসেন বিষয়টি কালের কণ্ঠকে নিশ্চিত করেছেন।

এ বিষয়ে অনশনরত প্রেমিকা বলেন, আড়াই বছর ধরে মাসুদ রানার সাথে আমার প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। আমাকে বিয়ের প্রলোভন দিয়ে শারীরিক সম্পর্ক গড়ে তোলে মাসুদ রানা। এমনকি সে নিয়মিত আমাকে বিভিন্নস্থানে নিয়ে যেত। অনশনরত থাকা অবস্থায় অবশেষে সামাজিকভাবে আমাদের বিয়ে সম্পন্ন হবে।

বাঘা থানার ওসি নজরুল ইসলাম বলেন, শুনেছি তাদের মধ্যে সমঝোতা হয়ে গেছে। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা