kalerkantho

শিমুলিয়া-কাঠালবাড়ি নৌরুট

লৌহজং টার্নিংয়ে ফেরি ও লঞ্চের সংঘর্ষ

বিআইডব্লিউটিএ'র দাবি সকল যাত্রী উদ্ধার

শিবচর (মাদারীপুর) প্রতিনিধি   

১৯ আগস্ট, ২০১৯ ০০:৩৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



লৌহজং টার্নিংয়ে ফেরি ও লঞ্চের সংঘর্ষ

ছবি: কালের কণ্ঠ

শিমুলিয়া-কাঠালবাড়ি নৌরুটের লৌহজং টার্নিংয়ে ফেরি ও দুইটি যাত্রী বোঝাই লঞ্চের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। দুর্ঘটনায় আক্রান্ত একটি লঞ্চের যাত্রী বিআইডব্লিউটিএর উপ-পরিচালক শাহাদাত হোসেন দাবি করেছে দুর্ঘটনা কবলিত লঞ্চ ২টির যাত্রীদের উদ্ধার করে শিমুলিয়া ঘাটে পৌঁছে দেওয়া হয়েছে। তবে লঞ্চের একাধিক যাত্রী মুঠোফোনে জানান ফেরির সঙ্গে সংঘর্ষের পর কয়েকজন যাত্রী নদীতে পরে যায়। পরে খননকাজে নিয়োজিতরা কয়েকজনকে উদ্ধার করে।

জানা যায়, রবিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিক কাঠালবাড়ি ঘাট থেকে এমভি আশিক ঈদ শেষে কর্মস্থলে ফেরা দেড়-দুই শতাধিক যাত্রী নিয়ে শিমুলিয়া ঘাটের উদ্দেশে ছেড়ে যায়। এর ১৫ মিনিট পর এমভি সুরভী-২ একই পরিমাণ যাত্রী নিয়ে শিমুলিয়ার উদ্দেশে রওনা করে। রাত ৮টার পর এমভি আশিক লঞ্চটি লৌহজং টার্নিং অতিক্রমকালে কাঠালবাড়ি ঘাটমুখি ডাম্ব ফেরি রায়পুরার সঙ্গে ধাক্কা লেগে চরে উঠে যায়।

এ সময় কয়েকজন যাত্রী পানিতে পড়ে যায়। ঘটনার আচ করতে পেরে বিআইডব্লিউটিএ'র খনন কাজে নিয়োজিত টাগ বোট কয়েকজন যাত্রীকে উদ্ধার করে। এর ঠিক ১৫-২০ মিনিট পর একই ফেরির সঙ্গে একই চ্যানেলে এমভি সুরভী-২ এর ধাক্কা লাগে। ফেরির ধাক্কায় এই লঞ্চটিও চরে উঠে যায়। পরে অন্য লঞ্চ এনে যাত্রীদের উদ্ধার করা হয়। 

এমভি আশিক লঞ্চের যাত্রী এমদাদ মুঠোফোনে বলেন, লঞ্চটিতে ধাক্কা লাগার পর কাত হয়ে চরে উঠে যায়। এ সময় দুইজন যাত্রীকে নদী থেকে বিআইডব্লিউটিএ'র ড্রেজিং টাগ বোট উদ্ধার করে। তবে ক'জন পানিতে পড়েছে সেটি বুঝতে পারিনি। আমাদের কয়েকজনকে ওই টাগ বোটেই অন্য ফেরিতে তুলে দেয়। 

কাঠালাবড়ি লঞ্চ মালিক সমিতির সহসভাপতি তোতা হাওলাদার বলেন, ফেরির অদক্ষ চালকের অদক্ষতায় পর পর ২টি লঞ্চে আঘাত হানে ফেরি।

আক্রান্ত লঞ্চ সুরভী-২ এর যাত্রী এ রুটের বিআইডব্লিউটিএর উপ-পরিচালক শাহাদাত হোসেন মুঠোফোনে বলেন, লৌহজং টার্নিংয়ে প্রচণ্ড স্রোত থাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। আমরা যাত্রীদের উদ্ধার করে শিমুলিয়ায় পাঠিয়েছি। যারা নদীতে পড়েছিল তাদের উদ্ধার করা হয়েছে। আমার জানা মতে কেউ নিখোঁজ নেই।

ডাম্ব ফেরি রায়পুরা মাস্টার ইনচার্জ হারুনুর রশীদ বলেন, লঞ্চগুলো উল্টো পথে এসে ফেরির সঙ্গে ধাক্কা লাগায়। ফেরির কোনো দোষ নেই। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা