kalerkantho

সোমবার । ১৬ ডিসেম্বর ২০১৯। ১ পোষ ১৪২৬। ১৮ রবিউস সানি                         

সেনাবাহিনীর ভুয়া নিয়োগপত্র দিয়ে ৩৩ লাখ টাকা আত্মসাৎ, যুবক গ্রেপ্তার

পঞ্চগড় প্রতিনিধি   

১৮ আগস্ট, ২০১৯ ১৯:১০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সেনাবাহিনীর ভুয়া নিয়োগপত্র দিয়ে ৩৩ লাখ টাকা আত্মসাৎ, যুবক গ্রেপ্তার

পঞ্চগড়ে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর বেসামরিক পদে চাকরি দেওয়ার কথা বলে ৭ যুবকের কাছ থেকে ৩৩ লাখ হাতিয়ে নেওয়া সেই সোহাগ রানাকে (২০) আটক করে স্থানীয়রা পুলিশের হাতে তুলে দিয়েছেন। তবে তার বাবা ফরিদুল ইসলাম এখনো পলাতক। সোহাগ রানার বাড়ি পঞ্চগড় সদর উপজেলার হাড়িভাসা ইউনিয়নের নাককাটি এলাকায়।

এ ঘটনায় আজ রবিবার সকালে হাড়িভাসা ইউনিয়নের সালটিয়াপাড়া এলাকার প্রতারিত সৌরভ হোসেনের বাবা আব্দুল গফফার অভিযুক্ত সোহাগ রানা ও তার বাবা ফরিদুল ইসলামের বিরুদ্ধে পঞ্চগড় সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।

মামলার বাদী আব্দুল গফফার জানান, ফরিদুল ইসলাম ও তার ছেলে সোহাগ রানা তার ছেলে সৌরভ হোসেনসহ বিভিন্ন এলাকার ৭ যুবককে সেনাবাহিনীতে চাকরি দেওয়ার নামে জনপ্রতি আড়াই থেকে ৫ লাখ টাকা করে মোট ৩৩ লাখ টাকা হাতিয়ে নেন। টাকা নিয়ে তারা সেনাবাহিনীর লোগো সম্বলিত জাল নিয়োগপত্রও সরবরাহ করেন। এক পর্যায়ে ভুক্তভোগী যুবকরা জানতে পারেন তাদের জাল নিয়োগপত্র সরবরাহ করা হয়েছে।

বিষয়টি জানাজানি হলে ফরিদুল ইসলাম ও সোহাগ রানা গা ঢাকা দেন। পরে গতকাল শনিবার রাতে পঞ্চগড় সদর উপজেলার হাড়িভাসা বাজারে স্থানীয়রা সোহাগ রানাকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করে।

এ ব্যাপারে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও পঞ্চগড় থানার উপপরিদর্শক (এসআই) একরাম আলী বলেন, সেনাবাহিনীতে চাকরি দেওয়ার নামে প্রতারণা ও টাকা আত্মসাতের অভিযোগে সোহাগ রানা ও তার বাবা ফরিদুলের নামে একটি মামলা দায়ের হয়েছে। প্রতারণার অভিযোগে গ্রেপ্তার সোহাগ রানাকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা