kalerkantho

'ছিনতাইয়ের উদ্দেশেই রাজশাহী সিটি কলেজ ছাত্র রাব্বিকে হত্যা'

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী   

১৭ আগস্ট, ২০১৯ ২১:৩৪ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



'ছিনতাইয়ের উদ্দেশেই রাজশাহী সিটি কলেজ ছাত্র রাব্বিকে হত্যা'

ছিনতাইয়ের উদ্দেশেই রাজশাহী সিটি কলেজ ছাত্র ফারদিন ইসনা আশারিয়া রাব্বীকে (১৯) হত্যা করা হয় বলে গ্রেপ্তারকৃত এক আসামি আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে। আজ শনিবার রাত সোয়া ৮টার দিকে রাজশাহী মহানগর পুলিশের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। এর আগে গত ৬ আগস্ট রাব্বিকে নগরীর হেতেম খাঁ ছোট মসজিদ এলাকায় রাস্তার ওপরে চাপাতি দিয়ে মাথায় আঘাত করে খুন করা হয়।

পুলিশ জানায়, ওই ঘটনার পরের দিন মাদকসেবী ওই এলাকার বাসিন্দা কুদরত আলীর ছেলে রনককে (২৩) ৭ দশমিক ২ গ্রাম হেরোইনসহ গ্রেপ্তার করা হয়। ওই মামলায় তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারেও পাঠানো হয়। পরে পুলিশের তদন্তে উঠে আসে মাদক ব্যবসায়ী ও সেবী রনকই হলো কলেজ ছাত্র রাব্বি হত্যা মামলার মূল আসামি।

পরে ৮ আগস্ট রনককে হত্যা মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হয় এবং রিমান্ডের আবেদন করে পুলিশ। গত ১৪ আগস্ট রিমান্ডে আনা হয় তাকে। রিমান্ডে এনে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদে আসামি রনক হত্যাকাণ্ডের কথা স্বীকার করে। পাশাপাশি তার দেওয়া তথ্য মতে তার বাড়ির শয়ন কক্ষ হতে হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত একটি ১৫ ইঞ্চি ধারাল দা (দাউলি) আলামত হিসেবে জব্দ করা হয়। এর পর আজ শনিবার রাজশাহী মহানগর মুখ্য আদালত-৫ এর বিচারক সেলিম রেজার কাছে রনক দায় স্বীকার করে জবানবন্দি দেন। 

রনক আদালতকে জানায়, ঘটনার দিন একাই ছিনতাই করার উদ্দেশে তার পরিহিত গোল গলা গেঞ্জির ভেতরে দা লুকিয়ে রাখেন। এরপর ঘটনার দিন ভোর অনুমানিক সোয়া ৫টার দিকে সে ঘটনাস্থলের পাশে আমরুর কনফেকশনারীর দোকানের সামনে ছিনতাইয়ের উদ্দেশে ওঁৎ পেতে থাকেন। ওই সময় নিহত রাব্বী তিতুমীর ট্রেন ধরার উদ্দেশে ঘাড়ে ও কাঁধে ব্যাগ নিয়ে পায়ে হেঁটে হেঁটে বর্ণালীর মোড়ের দিকে যেতে থাকেন। তখন আসামি রনক ভিকটিম রাব্বীর পথরোধ করে দা বের করে ছিনতাইয়ের চেষ্টা করেন। ভিকটিম দৌঁড়ে পালানোর চেষ্টা করে। 

এ সময় দুইজনের মধ্যে ধস্তাধস্তি, পাছড়াপাছড়িও হয়। একপর্যায়ে রাব্বীকে ফেলে দেয়। এতে তিনি চিৎকার চেঁচামেচি শুরু করেন। এ সময় আসামি রনক রেগে গিয়ে পেছন থেকে ভিকটিম রাব্বী’র মাথায় দা দিয়ে সজোরে কোপ মারেন। ফলে রাব্বীর মাথায় গুরুতর রক্তাক্ত জখম হয়। এতে তিনি মাটিতে পড়ে যান। মাথায় গুরুতর আঘাতের কারণে লুটিয়ে পড়া রাব্বীর অবস্থা বেগতিক দেখে এবং আশেপাশের লোকজনের দ্বারা আটক হওয়ার আশংকায় টাকা, ম্যানিব্যাগ, মোবাইল, ব্যাগ না নিয়েই ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যান রনক। 

রনক আদালতকে আরো জানান, হেরোইনের টাকা সংগ্রহের জন্যই তিনি একাই দা হাতে ছিনতাইয়ে চেষ্টা করার সময় ধারাল দা দিয়ে হত্যা করেছেন রাব্বীকে। 

নিহত রাব্বী রাজশাহী সিটি কলেজের দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্র ছিলেন। ঈদের ছুটিতে তিনি বাড়ি ফিরছিলেন। তিনি দিনাজপুরের পার্বতীপুরের মোমিনপুর গ্রামের বাসিন্দা মোজাফফর আলী সরকারের বাসিন্দা।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা