kalerkantho

বাড়ির সীমানা নিয়ে বিরোধ, ১৮ মাসের শিশুকে জবাই

নাসরুল আনোয়ার, হাওরাঞ্চল    

১৭ আগস্ট, ২০১৯ ১৮:২২ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



বাড়ির সীমানা নিয়ে বিরোধ, ১৮ মাসের শিশুকে জবাই

বাড়ির সীমানা নিয়ে বড়দের বিরোধের বলি হয়েছে ওয়াসিম নামে ১৮ মাস বয়সী এক অবুঝ শিশু। আলকাছ মিয়া (২৫) নামে তারই এক চাচাতো চাচা শিশুটিকে জবাই করে হত্যা করেছে। আজ শনিবার ভোরে লোমহর্ষক এ ঘটনাটি ঘটেছে কিশোরগঞ্জের অষ্টগ্রাম উপজেলার ঢালারকান্দি গ্রামে। 

পুলিশ গ্রাম থেকে ঘাতক আলকাছ মিয়া, তার তিন ভাই ও পিতাসহ পাঁচজনকে আটক করে থানায় নিয়ে গেছে। আজ শনিবার বিকালে এ ঘটনার নিহত শিশুটির পিতা আব্দুল ওয়াদুদ বাদি হয়ে অষ্টগ্রাম থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলায় আটক পাঁচজনকেই আসামি করা হয়। পুলিশ আটক সকলকে ওয়াসিম হত্যা মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়েছে।
 
পুলিশ ও এলাকাবাসী জানায়, হাওরের প্রত্যন্ত গ্রাম অষ্টগ্রাম উপজেলার ঢালারকান্দি। ওই গ্রামের রাজ্জাক মিয়ার সঙ্গে বাড়ির সীমানা নিয়ে তারই বড় ভাই নূরু মিয়ার বিরোধ চলে আসছিল। এ নিয়ে এলাকায় বেশ কয়েকবার দুপক্ষের মধ্যে মারামারি হয়। এসব নিয়ে সালিস-দরবার হলেও ঘটনার আপস-মীমাংসা হয়নি। বিরোধের জের ধরে নূরু মিয়ার ছেলে আব্দুল ওয়াদুদের সঙ্গে আব্দুর রাজ্জাকের ছেলে আলকাছ মিয়ার দ্বন্দ্ব এক পর্যায়ে চরমে পৌঁছায়।

সূত্রগুলো জানায়, শুক্রবার শিশুটির বাবা আব্দুল ওয়াদুদ পারিবারিক কাজে কিশোরগঞ্জে অবস্থান করছিলেন। ওদিকে ঘটনার সময় শিশুটির মা রিকা বেগম ওয়াশ রুমে ছিলেন। শিশু ওয়াসিম ওই সময় ঘুমিয়েছিল। আজ শনিবার ভোরে এ সুযোগে আলকাছ মিয়া ধারালো ছোরা হাতে ঘর থেকে বের হয়ে ওয়াদুদের ঘরে ঢুকে পড়ে ঘুমন্ত শিশুটির গলায় ছোরা চালিয়ে দেন। ঘটনার সময় ঘাতক আলকাছকে বাধা দিতে গিয়ে তার চাচা (নিহত শিশুটির দাদা) নূরু মিয়া, আলকাছের শ্বশুর সুরুজ মিয়া ও সমন্ধি মজিবুর ছুরিকাঘাতে জখম হন।  

ঘটনার তাৎক্ষণিকতায় কিংকর্তব্যবিমূঢ় গ্রামবাসী এগিয়ে এসে আলকাছকে তাড়া করে একটি ঘরে আটক করে রাখে। খবর পেয়ে অষ্টগ্রাম থানার পুলিশ ঢালারকান্দি গ্রামে গিয়ে ঘাতক আলকাছসহ পাঁচজনকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে। আটক অন্যরা হচ্ছে আলকাছের পিতা রাজ্জাক মিয়া, তিন ভাই কাউছ মিয়া, সাইফুল মিয়া ও তিজল মিয়া।

অষ্টগ্রাম সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) এস.এম. আজিজুর রহমান শনিবার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।  

অষ্টগ্রাম থানার ওসি (তদন্ত) মো. শফিকুল ইসলাম জানান, বাড়ির সীমানা নিয়ে বিরোধের জের ধরেই ঘাতক আলকাছ অবুঝ শিশুটিকে পরিকবল্পিতভাবে হত্যা করে। আলকাছসহ তার আরো তিন ভাই ও পিতাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এ ঘটনায় শিশুটির পিতা বাদি হয়ে আটক পাঁচজনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। এ মামলায় তাদের গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা