kalerkantho

মঙ্গলবার। ২০ আগস্ট ২০১৯। ৫ ভাদ্র ১৪২৬। ১৮ জিলহজ ১৪৪০

শোক দিবসের চিঠি নিয়ে স্কুলের হট্টগোল থানা পর্যন্ত গড়াল

বেনাপোল (ঝিকরগাছা) প্রতিনিধি    

১৪ আগস্ট, ২০১৯ ২০:৩২ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



শোক দিবসের চিঠি নিয়ে স্কুলের হট্টগোল থানা পর্যন্ত গড়াল

যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলার শংকরপুর ইউনিয়নের সেকেন্দারকাঠি এস কে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সভাপতির বিরুদ্ধে আওয়ামী লীগের সদস্যদের বাদ দিয়ে জোরপূর্বক চিঠি লিখিয়ে নেওয়ার অভিযোগ ওঠেছে। বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষিকা বিষয়টি ঝিকরগাছার স্থানীয় সংসদ সদস্য ও উপজেলার চেয়ারম্যানকে অবহিত করেন। ঝিকরগাছা থানায়ও একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন তিনি।

লিখিত অভিযোগের ভিত্তিতে জানা যায়, গত মঙ্গলবার সকাল আনুমানিক সাড়ে ৮টার দিকে বিদ্যালয়ের সভাপতি আতিয়ার রহমান বিদ্যালয়ের দপ্তরি মেহেদী হাসান স্বপনকে দিয়ে ফোন করে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষিকা রেনজুনা আক্তারকে সকাল ৯টার মধ্যে বিদ্যালয়ে আসতে বলেন। তিনি বিদ্যালয়ে আসলে সভাপতি আতিয়ার রহমান ম্যানেজিং কমিটির সদস্য আওয়ামী লীগ কর্মী আরাফাত রহমান, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি শরিফুল ইসলাম এবং সাধারণ সম্পাদক আদম শফিউল্লাহকে জাতীয় শোক দিবসের চিঠি দিতে নিষেধ করা হয়েছে বলে লিখিত দিতে বলেন। এ কাজটি করতে পারব না বললে রেনজুনা আক্তারকে হুমকি ধামকি দিয়ে চাপ প্রয়োগ করেন। তিনি সম্মত না হওয়ায় এক পর্যায়ে সভাপতি আতিয়ার রহমান তার সঙ্গে থাকা শরিফুল ও আদম সফিউল্লাহ অফিসের দরজা বন্ধ করে রেনজুনা আক্তারের গলায় দা ধরে আওয়ামী কর্মীদের নাম বাদ দিয়ে চিঠি ইস্যু করতে বাধ্য করেন। বিষয়টি কাউকে জানালে খুন করার হুমকি দেন শিক্ষিকা রেনজুনা আক্তারকে। বিবেকের তাড়নায় শিক্ষিকা রেনজুনা আক্তার বিষয়টি কমিটির সদস্য আরাফাতসহ অন্যান্যদের জানান।

এ ব্যাপারে কমিটির সদস্য আরাফাত, শরিফুল ও আদম সফিউল্লাহ বলেন, আতিয়ার রহমান একজন বিএনপি কর্মী। তিনি কখনো চান না ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শাহাদাৎবার্ষিকী পালিত হোক। তিনি অনুষ্ঠান পণ্ড করার জন্য ষড়যন্ত্র করে এই সন্ত্রাসী কার্যক্রম চালিয়েছেন। তারা দেশদ্রোহী আতিয়ার রহমানের কঠিন শাস্তি দাবি করেন।

এ ব্যাপারে বিদ্যালয়ের সভাপতি আতিয়ার রহমানের মুঠোফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলে ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়।

ঝিকরগাছা থানার ওসি (তদন্ত) শেখ আবু হেনা মিলন জানান, বিদ্যালয়ের সভাপতি আতিয়ার ও তার সহযোগীদের নামে একটি অভিযোগ পেয়েছি। বিষয়টি তদন্ত চলছে। তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা