kalerkantho

বুধবার । ২১ আগস্ট ২০১৯। ৬ ভাদ্র ১৪২৬। ১৯ জিলহজ ১৪৪০

‌'গরু কোরবানির আগে আজ তোকে কোরবানি দিব'

সোনারগাঁ (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি   

১৪ আগস্ট, ২০১৯ ১৯:৫১ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



‌'গরু কোরবানির আগে আজ তোকে কোরবানি দিব'

আহত সফিকুল ইসলাম। ছবি: কালের কণ্ঠ

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে সফিকুল ইসলাম নামের এক মুদি ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে হত্যা চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে। আহত সফিকুল ইসলাম সোনারগাঁ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন আছে। এ ব্যাপারে তার স্ত্রী সাফিয়া বেগম বাদী হয়ে সোনারগাঁ থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।

প্রত্যক্ষদর্শী ও মামলার বাদী সাফিয়া বেগম জানান, উপজেলার পিরোজপুর ইউনিয়নের গঙ্গানগর গ্রামে সফিকুল ইসলাম মুদি দোকানের ব্যবসা করে। ১১ আগস্ট রাত প্রায় সাড়ে ১১টায় সে ঈদের বেচাকেনায় ব্যস্ত থাকা অবস্থায় প্রতিবেশী তমিজউদ্দিন দোকানে এসে জমি সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে তর্কবিতর্ক করে। এ সময় পাশের বাড়ির সফিকুল ইসলাম মাস্টারের ঘরজামাই মামুন অর রশীদ সংঘবদ্ধ হয়ে ধারাল অস্ত্র দিয়ে দোকানদার সফিকুল ইসলামের মাথায় কোপাতে থাকে। বোমা ও বিস্ফোরক মামলার আসামি বিএনপি নেতা তমিজউদ্দিন ও তার সহযোগী নুরুল আমিন, আনিসুর রহমান টিপু, সাইদুর রহমান মাসুম, মামুনের স্ত্রী নূরজাহান, মামুন মিয়া, ওবায়দুর রহমান অপু, রেজাউল করিমসহ অজ্ঞাত ৫/৬ জনের একটি দল দেশীয় অস্ত্র নিয়ে দোকানীকে এলোপাতাড়ি মারধর করে। এ অবস্থায় সফিকুলের চিৎকারে তার পাশের ফ্লেক্সিলোডের দোকানদার আল-আমিন এগিয়ে আসলে তাকেও নীলাফুলা জখম করে। পরে সকলে একতাবদ্ধ হয়ে মুদি ও ফ্লেক্সিলোডের দোকানে ভাঙচুর করে নগদ ২ লাখ টাকা ও ৫০ হাজার টাকার মালামাল লুট করে নিয়ে যায়। আহতদের চিৎকারে গ্রামবাসী ছুটে এলে তারা পালিয়ে যায়। পরে আহতদের উদ্ধার করে সোনারগাঁ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য নিয়ে আসার সময় তারা আবারো সংঘবদ্ধ হয়ে হাসপাতাল মসজিদের সামনে হামলা চালায়। এ সময় উভয় গ্রুপের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে।

কর্তব্যরত চিকিৎসক জানান, সফিকুল ইসলামের মাথায় গুরুতর জখম হয়েছে। তার মাথায় ১৩টি সেলাই হয়েছে। সময় মতো হাসপাতালে না আনলে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে বড় ধরনের ক্ষতির সম্ভাবনা ছিল।

আহত সফিকুল ইসলাম বলেন, তমিজউদ্দিনের সঙ্গে কথা কাটাকাটির একপর্যায়ে মামুন অর রশিদ ধারাল অস্ত্র নিয়ে আমার মাথায় কোপ দেওয়ার সঙ্গে সঙ্গে আমি মাটিতে লুটিয়ে পড়ি। কোপ দেওয়ার আগে সে আমাকে বলে গরু কোরবানির আগে আজ তোকে কোরবানি দিব।

আহত সফিকুলের ছেলে নজরুল ইসলাম বলেন, ঘটনার রাতে আহত অবস্থায় বাবাকে নিয়ে রাত সাড়ে ১২টায় থানায় আসি। বাবার মুমূর্ষু অবস্থা দেখে ডিউটি অফিসার জানান, আগে চিকিৎসা করুন, পরে আইনি ব্যবস্থা। 

অভিযুক্ত মামুন অর রশিদ ও নূরজাহানের সঙ্গে যোগাযোগ করলে তারা এ ব্যাপারে কোনো কথা বলতে রাজি হননি।

এ ব্যাপারে সোনারগাঁ থানার ওসি (তদন্ত) হেলালউদ্দিন জানান, লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত সাপেক্ষে আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা