kalerkantho

মঙ্গলবার। ২০ আগস্ট ২০১৯। ৫ ভাদ্র ১৪২৬। ১৮ জিলহজ ১৪৪০

সাপাহারে পানিতে ডুবে ও দুর্ঘটনায় দুজনের মৃত্যু

সাপাগার প্রতিনিধি   

১৪ আগস্ট, ২০১৯ ১৬:০৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সাপাহারে পানিতে ডুবে ও দুর্ঘটনায় দুজনের মৃত্যু

কোরবানির ঈদের নামাজের সময় খাঁড়ির পানিতে ডুবে কণক (৫) নামের এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। মৃত কণক উপজেলার ময়না কুড়ি গ্রামের ট্রলিচালক আব্দুর রশিদ এর মেয়ে। ঈদের নামাজের সময় গ্রামের লোকজন ঈদগাহে নামাজ পড়তে গেলে শিশু কণক গ্রামের অন্যান্য ছেলেমেয়েদের সাথে গ্রামের পাশের খাঁড়ির কসডেম (স্লুইস গেট) এর ওপর দিয়ে হাঁটাহাঁটি করছিল। এ সময় হঠাৎ কণকের পা পিছলে খাঁড়ির মধ্য পড়ে গেলে সাথের ছেলেমেয়েরা বাড়িতে এসে সংবাদ দেয়। তড়িঘড়ি বাড়িতে থাকা নারীরা ঘটনাস্থলে গেলে কণকের লাশ ভাসতে দেখে। শিশুটির মৃত্যুতে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে।

অপরদিকে ঈদের দিন সন্ধ্যাবেলায় রুবেল (২২) নামের এক বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া তার মোটরবাইকটি নিয়ে সাপাহার উপজেলা সদর হতে বাসায় ফিরছিল। পথে উপজেলার জবই বিলের ওপর নির্মিত ব্রিজ পার হয়ে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে গাছের সাথে ধাক্কা লেগে জ্ঞান হারিয়ে ফেলে। এ সময় তার মোটরবাইকে থাকা তার বন্ধু সোহেল রানাও (২১) মারাত্মক আহত হয়। রাতে তাদের রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করলে পরদিন মঙ্গলবার সকালে রুবেল এর মৃত্যু হয়। নিহত রুবেল মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শেষ বর্ষের শিক্ষাথী ও উপজেলার মুংরইল গ্রামের আব্দুল খালেকের ছেলে এবং তার বন্ধু সোহেল রানা একই গ্রামের ফইমুদ্দীনের ছেলে।

সোহেল রানা বর্তমানে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা