kalerkantho

শুক্রবার । ২৩ আগস্ট ২০১৯। ৮ ভাদ্র ১৪২৬। ২১ জিলহজ ১৪৪০

অতিরিক্ত পুলিশ সুপারসহ আহত ৩

বড়াইগ্রামে পুলিশের পিকআপ-প্রাইভেট কার সংঘর্ষে নিহত ১

নাটোর প্রতিনিধি    

১৪ আগস্ট, ২০১৯ ১২:৩৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বড়াইগ্রামে পুলিশের পিকআপ-প্রাইভেট কার সংঘর্ষে নিহত ১

নাটোরের বড়াইগ্রামে পুলিশের পিকআপের সাথে প্রাইভেট কারের সংঘর্ষে শাহজাহান আলী (৫০) নামে এক প্রাইভেট কারচালক নিহত হয়েছেন। সংঘর্ষে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (বড়াইগ্রাম সার্কেল) হারুন-অর-রশিদ, তাঁর দেহরক্ষী ইব্রাহিম হোসেন ও পিকআপচালক মোবারক হোসেন আহত হন। আহতদের বনপাড়া আমেনা ক্লিনিকে চিকিৎসা দেওয়ার পর নাটোর সদর হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে।

বুধবার সকাল ৮টার দিকে উপজেলার মহিষভাঙ্গা এলাকায় বনপাড়া-হাটিকুমরুল মহাসড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত প্রাইভেট কারচালক শাহজাহান আলী মুন্সিগঞ্জ জেলার সদর থানার কাচারিঘাট এলাকার মৃত ইমান আলীর ছেলে।

বড়াইগ্রাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দিলীপ কুমার দাস ও বনপাড়া হাইওয়ে থানার এসআই মাহফুজুর রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, বুধবার সকালে জরুরি কাজে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (বড়াইগ্রাম সার্কেল) হারুন-অর-রশিদ সঙ্গীয় বডিগার্ড ইব্রাহিম হোসেনকে নিয়ে বনপাড়ায় যাচ্ছিলেন। পথে নাটোর থেকে ঢাকাগামী একটি প্রাইভেট কারের সাথে মহিষভাঙ্গা এলাকায় মুখোমুখি সংঘর্ষে কারটি দুমড়ে-মুচরে যায়। এতে প্রাইভেট কারচালক শাহজাহান আলী ঘটনাস্থলেই মারা যান। এ সময় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (বড়াইগ্রাম সার্কেল) হারুন-অর-রশিদ, বডিগার্ড ইব্রাহিম হোসেন ও পিকআপচালক মোবারক হোসেন গুরুতর আহত হন। পরে পুলিশ ও স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে প্রথমে বনপাড়ার আমেনা ক্লিনিকে ভর্তি করেন। সেখানে অবস্থার অবনিত হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাদের নাটোর সদর হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। 

ওসি দিলীপ কুমার দাস আরো জানান, দীর্ঘ সময় গাড়ি চালানোর কারণে প্রাইভেট কারচালক ঘুমিয়ে পড়েছিলেন। যার কারণে গাড়িটি নিয়ন্ত্রণ ছিল না।

খবর পেয়ে পুলিশ সুপার লিটন কুমার সাহাসহ পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা হাসপাতাল ও ঘটনান্থল পরিদর্শন করেন। এ সময় পুলিশ সুপার লিটন কুমার সাহা সাংবাদিকদের জানান, সার্কেলের গাড়িচালক মোবারক হোসেনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। তাকে আমরা রাজশাহীতে পাঠানোর ব্যবস্থা করছি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা