kalerkantho

শুক্রবার । ২৩ আগস্ট ২০১৯। ৮ ভাদ্র ১৪২৬। ২১ জিলহজ ১৪৪০

ভাঙ্গুড়ায় ডিবি পুলিশ

ভয় দেখিয়ে ৫ লাখ টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ

ভাঙ্গুড়া (পাবনা) প্রতিনিধি   

২৩ জুলাই, ২০১৯ ২২:৫৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ভয় দেখিয়ে ৫ লাখ টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ

পাবনার ভাঙ্গুড়ায় ডিবি পুলিশ গ্রেপ্তারের ভয় দেখিয়ে ছয় ব্যবসায়ীর কাছ থেকে চার লাখ ৮৫ হাজার টাকা হাতিয়ে নিয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত সোমবার রাতে পাবনা ডিবি পুলিশের একটি দল উপজেলার চরভাঙ্গুড়া গ্রামের ঘোষপাড়ায় ছয় ব্যবসায়ীর কাছ থেকে এ টাকা হাতিয়ে নেয়। এ ঘটনায় ভুক্তভোগী ব্যবসায়ীরা গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে ভাঙ্গুড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সৈয়দ আশরাফুজ্জামান ভাঙ্গুড়া থানার ওসি মাসুদ রানাকে ঘটনা তদন্তের নির্দেশে দিয়েছেন।

অভিযোগে জানা যায়, ঘি ব্যবসায়ী পরিতোষ ঘোষ, বলাই ঘোষ, বিপ্লব ঘোষ, সমর ঘোষ, দেবযানী ঘোষ ও জগদীশ ঘোষ চরভাঙ্গুড়া গ্রামের ঘোষপাড়ায় পাশাপাশি বাস করেন। গত সোমবার রাতে দুটি মাইক্রোবাসযোগে ২০-২৫ জনের একটি দল ঘোষপাড়ায় ঢোকে। এ সময় এই দলের সদস্যরা পাঁচ-ছয় ভাগে বিভক্ত হয়ে ওই ব্যবসায়ীদের বাড়িতে যায়। ঘি কেনার কথা বলে ঘরে ঢুকেই তারা প্রত্যেকের হাতে হাতকড়া লাগায়। এ সময় অস্ত্র দেখিয়ে তাদের তুলে নিয়ে যাওয়ার ভয় দেখিয়ে ডিবি পুলিশ প্রত্যেকের কাছ থেকে পাঁচ লাখ টাকা করে দাবি করে। এতে বাধ্য হয়ে পরিতোষ ঘোষ ৫০ হাজার, বলাই ঘোষ ৬০ হাজার, বিপ্লব ঘোষ ৯০ হাজার, সমর ঘোষ দুই লাখ ১৫ হাজার, দেবযানী ঘোষ ২০ হাজার, জগদীশ ঘোষ ৫০ হাজার টাকা দিয়ে মুক্তি পান। টাকা নিয়ে ডিবি পুলিশ চলে গেলে রাতেই ব্যবসায়ীরা বিষয়টি ভাঙ্গুড়া ইউপি চেয়ারম্যান বেলাল হোসেনকে জানান। 

এদিকে টাকা নেওয়ার অভিযোগ অস্বীকার করে পাবনা ডিবি পুলিশের ওসি দেলোয়ার হোসেন বলেন, অভিযোগকারী প্রত্যেকেই বাটার অয়েল দিয়ে ঘি তৈরি করে। তাই ডিবি পুলিশের একটি দল ভাঙ্গুড়ায় গিয়ে ঘিয়ের নমুনা সংগ্রহ করেছে। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে তারা এই মিথ্যা অভিযোগ করেছে। 

ভাঙ্গুড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশরাফুজ্জামান বলেন, অভিযোগ পেয়ে থানার ওসিকে বিষয়টি তদন্ত করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা