kalerkantho

শনিবার । ২৪ আগস্ট ২০১৯। ৯ ভাদ্র ১৪২৬। ২২ জিলহজ ১৪৪০

ছাত্রলীগ নেতার টিউশনির টাকায় পাঠ্যবই পেলেন দরিদ্র উজ্জ্বল

দিনাজপুর প্রতিনিধি   

২৩ জুলাই, ২০১৯ ২১:২৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ছাত্রলীগ নেতার টিউশনির টাকায় পাঠ্যবই পেলেন দরিদ্র উজ্জ্বল

দিনাজপুরের ফুলবাড়ী উপজেলার খয়েরবাড়ী ইউনিয়নের নাপিতপাড়া গ্রামের বসিন্দা উজ্জ্বল চন্দ্র (১৯)। পিতা কার্তিক চন্দ্র ও মা সুদেবী রাণী। উজ্জ্বল পেশায় নরসুন্দর ও বর্তমানে ফুলবাড়ী সরকারি কলেজের ডিগ্রি প্রথম বর্ষের ছাত্র। তার পিতা একজন কৃষি শ্রমিক ও মা গৃহিণী। অভাবের সংসার। দিন এনে দিন খায় তারা। ঠিক মতো খাবার জুটে না। পাঠ্যবই কেনা তো স্বপ্নের ব্যাপার। পড়ার বইয়ের অভাবে ঠিক মতো পড়ালেখা করতে পারছিলেন না তিনি। মেধাবী শিক্ষার্থী হওয়ার সত্বেও বইয়ের অভাব তাকে পড়ালেখা থেকে দূরে ঠেলে দিচ্ছিল।

হঠাৎ করেই বিষয়টি নজরে আসে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ দিনাজপুর জেলা শাখার সহসভাপতি সুমিত শীলের। সুমিত শীল একসেট বই কিনেন তার টিউশনির টাকা দিয়ে। মঙ্গলবার সকালে উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মিঠুন চৌধুরী ও সাংগঠনিক সম্পাদক সুজন চৌধুরীকে সঙ্গে নিয়ে উজ্জ্বল চন্দ্রের হাতে বই তুলে দেন তিনি।

উজ্জ্বল চন্দ্র জানান, অর্থের অভাবে অনেক ছোট থেকেই সেলুনে নরসুন্দরের কাজ করে আসছেন। বিভিন্নভাবে সহযোগিতা পেয়ে বর্তমানে ডিগ্রিতে পড়ালেখা করছেন। কিন্তু পাঠ্যবইয়ের অভাবে পড়ালেখায় পিছিয়ে পড়ছিলেন তিনি। জেলা ছাত্রলীগের সুমিতের কষ্টের টিউশনির টাকায় বই কিনে তার হাত তুলে দেন। সুমিতসহ বাংলাদেশ ছাত্রলীগকে ধন্যবাদ জানান তিনি।

উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মিঠুন চৌধুরী জানান, জেলা ছাত্রলীগের সহসভাপতি সুমিত শীল টিউশনির টাকা দিয়ে উজ্জ্বল চন্দ্রকে পাঠ্যবই কিনে দিয়ে মানবতার পরিচয় দিয়েছেন। বাংলাদেশ ছাত্রলীগের প্রত্যেক নেতাই এমনই মহতী কাজে নিজেদের নিবেদিত করবেন এই প্রত্যাশাই করেন তিনি। 

জেলা ছাত্রলীগের সহসভাপতি সুমিত শীল বলেন, ‘অভাব-অনটনের পরিবারের জন্ম নেওয়া উজ্জ্বল চন্দ্র পাঠ্যবইয়ের অভাবে লেখাপড়া থেকে দূরে সড়ে যাচ্ছিল। সে সেলুনে কাজ করে নিজ লেখাপড়াসহ পরিবারকে সাহায্য করছে। বঙ্গবন্ধুর আদর্শ মেনে, দেশনেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অনুপ্রেরণায় ও ফুলবাড়ী-পার্বতীপুরের গর্ব প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রাণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মোস্তাফিজুর রহমান ফিজারের দিকনির্দেশনায় শিক্ষার্থীরা যেন ঝরে না পড়ে সে দিকে লক্ষ্য রেখে কাজ করা হচ্ছে। বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের সভাপতি রেজাওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন ও সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানীর নেতৃত্বে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ সকল ধরনের সেবামূলক কাজ করে যাচ্ছে। তারই ধারাবাহিকতায় উজ্জ্বল চন্দ্রের হাতে পাঠ্যবই তুলে দেওয়া হলো।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা