kalerkantho

বুধবার । ২১ আগস্ট ২০১৯। ৬ ভাদ্র ১৪২৬। ১৯ জিলহজ ১৪৪০

চাঁদপুরে স্কুল শিক্ষিকাকে গলা কেটে হত্যার ঘটনায় মামলা

চাঁদপুর প্রতিনিধি   

২২ জুলাই, ২০১৯ ১৬:৫২ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



চাঁদপুরে স্কুল শিক্ষিকাকে গলা কেটে হত্যার ঘটনায় মামলা

চাঁদপুরে স্কুল শিক্ষিকাকে গলা কেটে হত্যার ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে। আজ সোমবার দুপুরে সদর মডেল থানায় এই মামলা করেন নিহতের স্বামী অলোক গোস্বামী। এতে অজ্ঞাতনামা ব্যক্তিদের আসামি করা হয়েছে।

সদর মডেল থানার ওসি মো. নাসিমউদ্দিন জানান, স্পর্শকাতর এই মামলার তদন্ত কর্মকর্তা হিসেবে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে উপ-পরিদর্শক অনুপ চক্রবর্তীকে।

এর আগে গতকাল সোমবার চাঁদপুর শহরের ষোলঘর ওয়াপদা কলোনির বাসায় অজ্ঞাতনামা দুর্বৃত্তদের হাতে নির্মমভাবে নিহত হন জয়ন্তী চক্রবর্তী। তিনি শহরের ষোলঘর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা। ঘটনার সময় তার পরিবারের কোনো সদস্য বাসায় ছিলেন না। নিহত জয়ন্তী চক্রবর্তীর স্বামী অলোক গোস্বামী চাঁদপুরে পানি উন্নয়ন বোর্ডের হিসাব রক্ষণ কর্মকর্তা ছিলেন। সম্প্রতি চাকরি থেকে অবসরে যান তিনি।

সপরিবারে বাসায় থাকলেও তাদের বড় মেয়ে অনন্যা গোস্বামী এশিয়ান প্যাসিফিক ইউনিভার্সিটিতে পড়াশোনা করছেন। দ্বিতীয় মেয়ে তন্বী গোস্বামী এবারে এইচএসসি পাস করেছে এবং একমাত্র ছেলে রাজধানীর নটর ডেম কলেজে উচ্চ মাধ্যমিক প্রথমবর্ষে পড়াশোনা করছে। আর সেই ছেলেকে নিয়ে গত রবিবার ভোরে স্বামী অলোক গোস্বামী ঢাকায় যান। ঘটনার সময় দুই মেয়েও বাসায় ছিলেন না। ফলে অজ্ঞাতনামা দুর্বৃত্তরা দিনের কোনো একসময় বাসায় প্রবেশ করে জয়ন্তী চক্রবর্তীকে গলায় ধারালো অস্ত্র দিয়ে জবাই করে হত্যা করে।

সোমবার দুপুরে চাঁদপুর সদর মডেল থানার ওসি মো. নাসিমউদ্দিন জানান, স্ত্রীকে অজ্ঞাতনামা দুর্বৃত্তরা পূর্বপরিকল্পিতভাবে গলা কেটে হত্যা করেছে এমন অভিযোগ এনে অলোক গোস্বামী একটি হত্যা মামলা করেন।

এদিকে গত রবিবার রাতে নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য চাঁদপুর জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়। ময়না তদন্ত শেষে সোমবার সকালে পরিবারের কাছে লাশ হস্তান্তর করা হয়। অন্যদিকে সহকর্মীকে নির্মমভাবে হত্যার বিচারের দাবিতে চাঁদপুর শহরের প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছেন। এতে দুর্বৃত্তদের চিহিৃত করে গ্রেপ্তারের দাবি জানিয়েছেন তারা।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা