kalerkantho

শনিবার । ২৪ আগস্ট ২০১৯। ৯ ভাদ্র ১৪২৬। ২২ জিলহজ ১৪৪০

সাপাহারে ছেলেধরা আতঙ্কে বিদ্যালয়ে শিশু শিক্ষার্থীর উপস্থিতি হ্রাস

সাপাহার (নওগাঁ) প্রতিনিধি    

২২ জুলাই, ২০১৯ ১৪:২৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সাপাহারে ছেলেধরা আতঙ্কে বিদ্যালয়ে শিশু শিক্ষার্থীর উপস্থিতি হ্রাস

সারাদেশে ছেলেধরা আতঙ্কে নওগাঁর সাপাহার উপজেলার বিভিন্ন প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিশু শিক্ষার্থীর সংখ্যা ক্রমশ হ্রাস পাচ্ছে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বেশ কিছু দিন পূর্বে দেশের বৃহৎ পদ্মা সেতুতে মাথা লাগবে-এ গুজব সারা দেশে ছড়িয়ে পড়ে। সেই থেকে দেশের বিভিন্ন স্থানে ছেলেধরা সন্দেহে গনপিটুনিতে মারাও যায় বেশ কয়েকজন নারী-পুরুষ। সম্প্রতি উপজেলার কলমুডাঙ্গা গ্রামে সন্ধ্যা বেলায় পার্শ্ববর্তী গ্রামের এক মানষিক ভারসাম্যহীন(অর্ধপাগল) ব্যক্তিকে ছেলে ধরা মনে করে গনপিটুনি দেয় জগনগ। সংবাদ পেয়ে থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে তাকে মারত্মক আহত অবস্থায় উদ্ধার করে। বর্তমানে ছেলে ধরা আতঙ্ক (গুজব)দেশের সব স্থানে জোরালভাবে পৌঁছানোর কারণে উপজেলার পিছলডাঙ্গা, কলমুডাঙ্গা, গোয়ালা, বৈদ্যপুর, বাহাপুর, খেড়ুন্দা, শিরন্টি, গোপালপুরসহ প্রায় সকল প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতে শিশু শ্রেণি হতে-তৃতীয় শ্রেণি পর্যন্ত সকল ক্লাশে শিক্ষার্থীর সংখ্যা ৫০% এর নিচে নেমে এসেছে। অচিরেই এ আতঙ্ক কেটে উঠতে না পারলে বিদ্যালয়গুলোতে অসংখ্য শিক্ষার্থী ঝরে পড়তে পারে বলে ধারণা করছে উপজেলার শিক্ষানুরাগী মহল। 
এ বিষয়ে উপজেলার বিভিন্ন গ্রামের আজিমুদ্দীন, আব্দুল করিম, আব্দুস সালামসহ একাধিক অভিভাবকদের সাথে কথা হলে তারা জানান, গুজবটি এলাকায় যে ভাবে ছড়িয়ে পড়েছে তাতে আমাদেরও ভয় হচ্ছে ছেলে মেয়েকে কাছ ছাড়া করতে। 

এ ব্যাপারে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার শহিদুল আলমের সাথে কথা হলে তিনি এ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন এবং সকল শিক্ষার্থীর অভিভাবকদের উদ্দেশে বলেন, বিষয়টি নিছক গুজব ছাড়া আর কিছু নয়। জনগনের মাঝে গণসচেতনতা বৃদ্ধি পেলেই এই গুজব আতঙ্ক কেটে যাবে। এছাড়া অপরিচিত কোনো ব্যক্তিকে ছেলেধরা সন্দেহ হলে কোনো বিশৃঙ্খলা না ঘটিয়ে তার বিষয়ে স্থানীয় থানায় সংবাদ দেওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা