kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২২ আগস্ট ২০১৯। ৭ ভাদ্র ১৪২৬। ২০ জিলহজ ১৪৪০

ছেলেধরা সন্দেহে যুবককে পুলিশে দিল জনতা

জামালপুর প্রতিনিধি   

২২ জুলাই, ২০১৯ ০১:২৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ছেলেধরা সন্দেহে যুবককে পুলিশে দিল জনতা

ছবি: কালের কণ্ঠ

ছেলেধরা সন্দেহে জামালপুর শহরের রেলস্টেশন থেকে হাবেল (৩০) নামের এক যুবককে হাতেনাতে ধরে পুলিশে দিয়ে স্থানীয় জনতা। রবিবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। আটক হাবেল জামালপুর পৌরসভার বনপাড়া এলাকার মো. ফজলুল হকের ছেলে।  

জানা গেছে, রবিবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে জামালপুর শহরের মুন্সিপাড়া এলাকার বৈদ্যুতিক মিস্ত্রি মোবারক হোসেন বরকুর স্ত্রী জহুরা খাতুন ছেলে সাখাওয়াত হোসেন জনিকে নিয়ে বাসায় ফিরছিলেন। পথে রেলস্টেশন সড়কে তাদের বাসার কাছেই পেছন থেকে এক যুবক জনির মাথায় বডি স্প্রে’র বোতল থেকে স্প্রে করছিল। জনির মা পেছন থেকে দেখে ফেলে চিৎকার দিলে ওই যুবক দৌড়ে রেলস্টেশনের দিকে পালিয়ে যায়। 

জহুরা খাতুন বলেন, ‘স্প্রে করার পর জনির মাথা ঝিমঝিম করছিল। তাড়াতাড়ি মাথায় পানি ঢালছি।’ পরে স্থানীয় জনতা রেলস্টেশন থেকে হাবেলকে আটক করে পুলিশে খবর দেন। সদর থানা পুলিশ দ্রুত ঘটনাস্থলে গেলে বিক্ষুব্ধ জনতা হাবেলকে পুলিশের কাছে সোপর্দ করেছে। তাকে থানা হেফাজতে রাখা হয়েছে। এ ব্যাপারে তার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হবে বলে পুলিশ জানিয়েছে।

সাখাওয়াত হোসেন জনি স্থানীয় বাংলাদেশ রেলওয়ে উচ্চ বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণির ছাত্র। ঘটনার বর্ণনা দিয়ে সে কালের কণ্ঠকে বলেছে, ‘আমি গেতাছি। অই টাইমে আমার পিছে থেইকা একজন লোকে স্প্রে করতাছে। আমি বুঝি নাই। আম্মু তো পিছে থেইকা দেইখাই চিক্কির মারছে। তহন হেই লোকটা বলতাছে আমার স্প্রে’র ধার নাই। কিছুই হবো না। হেরপর সে রেলস্টশনের দিকে পালাইয়া যায়।’

জামালপুর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সালেমুজ্জামান কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘বডি স্প্রে’র বোতলটা জব্দ করা হয়েছে। এটি আসলে শরীরের দুর্গন্ধ দূর করার জন্য একটি পারফিউম। এই বডি স্প্রেতে অজ্ঞান হওয়ার সুযোগ নেই। আটক হাবেলের বিরুদ্ধে জামালপুর সদর থানায় চারটি মাদক মামলা রয়েছে। সম্প্রতি সে জামিন পেয়ে জেলখানা থেকে বেরিয়েছে। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে কেন সে এই কাজটি করতে গেল। আজ সোমবার সকালে মামলা দায়ের করে তাকে আদালতে চালান দেওয়া হবে।’ 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা