kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২২ আগস্ট ২০১৯। ৭ ভাদ্র ১৪২৬। ২০ জিলহজ ১৪৪০

আন্দোলনে কর্মকর্তা-কর্মচারীরা, সেবা বঞ্চিত সিঙ্গাইর পৌরবাসী

সিঙ্গাইর (মানিকগঞ্জ) প্রতিনিধি   

২২ জুলাই, ২০১৯ ০০:৫৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



আন্দোলনে কর্মকর্তা-কর্মচারীরা, সেবা বঞ্চিত সিঙ্গাইর পৌরবাসী

সরকারি কোষাগার থেকে বেতন-ভাতা ও পেনশন দেওয়ার দাবিতে মানিকগঞ্জের সিঙ্গাইর পৌরসভা ভবনের গেটে তালা লাগিয়ে রাজধানীতে চলমান আন্দোলন কর্মসূচিতে অংশ নিচ্ছেন পৌর কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। ফলে গত ১৪ জুলাই থেকে পানি সরবরাহ ছাড়া জন্মনিবন্ধন সনদ, নাগরিকত্ব সনদ, মৃত্যু সনদ, ওয়ারিশ সনদ ট্রেড লাইসেন্স, ময়লা পরিষ্কার-পরিছন্নসহ সব ধরনের নাগরিক সেবা বন্ধ রয়েছে। এতে চরম ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন পৌরবাসী।

জানা যায়, সরকারি কোষাগার থেকে বেতন-ভাতা ও পেনশনের দাবিতে গত ১৪ জুলাই থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য ঢাকায় কর্মবিরতি আন্দোলন চলছে। সিঙ্গাইর পৌরসভা ভবনে তালা ঝুলিয়ে দিয়ে আন্দোলনে অংশ নিতে ঢাকায় অবস্থান করছেন পৌরসভার কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। এতে পৌরসভার সকল কার্যক্রম স্থবির হয়ে পড়েছে। 

সিঙ্গাইর পৌরসভায় গিয়ে দেখা যায়, পৌরসভার ভবনের গেটে তালা ঝুলছে। গেটের বাইরে দাঁড়িয়ে আছেন ২০ থেকে ২৫ জন সেবা প্রার্থী। তারা কেউ এসেছেন নাগরিক সনদ নিতে, কেউ ওয়ারিশান সার্টিফিকেট, আবার কেউ এসেছেন ট্রেড লাইসেন্স ও জন্ম সনদের জন্য। গত এক সপ্তাহ ধরে ঘুরছেন পৌর কার্যালয়ে। পৌরসভা ভবনে তালাবদ্ধ দেখে হতাশ হয়ে ফিরে যাচ্ছেন তারা। কেউ কেউ ক্ষোভ ঝাড়ছেন পৌর কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ওপর। 

স্থানীয় সাংবাদিক সুজন মাহমুদ মিলন বলেন, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের আন্দোলনের ফলে পৌরসভার সব ধরনের সেবা বন্ধ রয়েছে। যেখানে সেখানে ময়লার স্তূপ পড়ে আছে। দুর্গন্ধে রাস্তায় চলাচল করতে কষ্ট হচ্ছে জনসাধারণের। সেবা প্রার্থীরা পৌরসভায় এসে কাউকে না পেয়ে হতাশ হয়ে ফিরে যাচ্ছে।

সিঙ্গাইর পৌর সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি সাইদুর রহমান মুঠোফোনে বলেন, নাগরিকদের কষ্ট দেওয়া আমাদের কাম্য নয়। আমরা অসহায়, পিঠ দেয়ালে ঠেকে গেছে। তাই আন্দোলনে নেমেছি। সরকার আমাদের দাবিগুলো মেনে না নেওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাব।

পৌর সচিব তায়েব আলী জানান, সরকারি কোষাগার থেকে বেতন-ভাতা না দেওয়ায় দেশের ৩২৭টি পৌরসভায় ৩৫ হাজারেরও বেশি কর্মকর্তা কর্মচারী অর্থাভাবে মানবেতর জীবন যাপন করছেন। সরকার আমাদের দাবিগুলো মেনে নিলেই কর্মকর্তা-কর্মচারীরা কাজে যোগ দেবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা