kalerkantho

রবিবার। ২৫ শ্রাবণ ১৪২৭। ৯ আগস্ট ২০২০ । ১৮ জিলহজ ১৪৪১

হোটেলের নারী কর্মচারীকে পাশের বাড়িতে নিয়ে ধর্ষণ করলেন মালিক

আদমদীঘি (বগুড়া) প্রতিনিধি   

১৮ জুলাই, ২০১৯ ১৮:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



হোটেলের নারী কর্মচারীকে পাশের বাড়িতে নিয়ে ধর্ষণ করলেন মালিক

বগুড়ার আদমদীঘিতে একটি হোটেলের মালিকের বিরুদ্ধে ওই হোটেলের এক নারী কর্মচারীকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় বুধবার রাতে ওই নারী বাদী হয়ে হোটেল মালিক ফারেশ আলীর (৪৫) বিরুদ্ধে আদমদীঘি থানায় একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেছেন। ফারেশ আলী আদমদীঘি উপজেলার কুন্দগ্রাম ইউনিয়নের তিলছ সোনারপাড়া গ্রামের খয়বর আলীর ছেলে। ঘটনার পর থেকে ফারেশ আলী পলাতক রয়েছেন।

মামলার এজাহার ও গ্রামবাসী সূত্রে জানা যায়, আদমদীঘি উপজেলার শিববাটি বাজারে ফারেশ আলীর একটি খাবার হোটেল রয়েছে। ওই হোটেলে সীতাহার গ্রামের এক নারী দীর্ঘদিন ধরে কাজ করে আসছিলেন। বিভিন্ন সময় ফারেশ আলী তাকে কুপ্রস্তাব দিয়ে আসছিলেন। গত মঙ্গলবার দুপুরে ফারেশ আলী ওই নারীকে সঙ্গে নিয়ে পাশের একটি বাড়িতে জ্বালানির কাঠ আনতে যান। এক পর্যায়ে তিনি (খয়বর আলী) বাড়ির দোতালায় নিয়ে গিয়ে ওই নারী কর্মচারীকে জোর করে ধর্ষণ করেন। পরে ধর্ষণের ঘটনাটি ওই নারী এলাকার লোকজনের কাছে প্রকাশ করেন। এরপর ফারেশ আলী গ্রাম ছেড়ে পালিয়ে যান। বুধবার রাতে ওই নারী বাদী হয়ে আধমদীঘি থানায় একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন। 

এ ব্যাপারে আদমদীঘি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি-তদন্ত) আব্দুর রাজ্জাক মামলা দায়েরের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ফারেশ আলীকে গ্রেপ্তারের জন্য জোর তৎপরতা চলছে। দ্রুত তাকে গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় নিয়ে আসা হবে। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা