kalerkantho

বুধবার । ২১ আগস্ট ২০১৯। ৬ ভাদ্র ১৪২৬। ১৯ জিলহজ ১৪৪০

বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত মৎস্য চাষিরা পাবেন ক্ষতিপূরণ

শ্রীবরদী (শেরপুর) প্রতিনিধি   

১৮ জুলাই, ২০১৯ ১৬:২৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত মৎস্য চাষিরা পাবেন ক্ষতিপূরণ

উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢল ও অতিবৃষ্টির কারণে সৃষ্ট বন্যায় ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। আর এই বন্যায় যে পুকুরগুলোর মাছ ভেসে গেছে তাদের তালিকা করে প্রত্যেক পুকুরের মালিককে প্রণোদনা হিসেবে কিছু ক্ষতিপূরণ দেয়া হবে। 

বৃহস্পতিবার (১৮ জুলাই) শেরপুরের শ্রীবরদী উপজেলা মৎস্য অধিদপ্তর আয়োজিত জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ উদ্বোধন উপলক্ষে বর্ণাঢ্য র‌্যালি শেষে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে এমপি প্রকৌশলী একেএম ফজলুল হক চান বক্তব্যের এক পর্যায়ে এসব কথা বলেন। 

প্রকৌশলী একেএম ফজলুল হক চান বলেন, প্রত্যেকটা মানুষের যেন ঘর থাকে। প্রত্যেকটা মানুষ যেন খেয়ে-পড়ে বাঁচতে পারে। প্রত্যেকটা মানুষ যেন বিদ্যুৎ পায়। লেখা পড়ার সুযোগ সুবিধা পায়। এছাড়াও একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। প্রত্যেকটা বাড়ি থেকে একজন করে চাকরি পাবে। প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা এ ব্যবস্থা করছেন। তিনি এ দেশের গ্রামাঞ্চলের মানুষের ভাগ্য উন্নয়নের জন্যে নিরলস পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। 

‘মৎস্য সেক্টরের সমৃদ্ধি, সুনীল অর্থনীতির অগ্রগতি’ এ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে উপজেলা পরিষদের সোমেশ্বরি হলে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সেঁজুতি ধর। সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন উপজেলা চেয়ারম্যান এডিএম শহিদুল ইসলাম ও ভাইস চেয়ারম্যান জুয়েল আকন্দ। ‘মাছ চাষে গড়বো দেশ, বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ’ এ শ্লোগানকে সামনে রেখে সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা কৃষিবিদ সাইদুর রহমান। 

উপজেলা মৎস্য সম্প্রসারণ অফিসার ইসতিয়াক আহমেদ এর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগ নেতা মোহাম্মদ আলী লাল, বীরমুক্তিযোদ্ধা আব্দুল্লাহ ছালেহ ও একতা মৎস্যজীবী সমবায় সমিতি লিমিটেডের সাধারণ সম্পাদক জাহিদুল ইসলাম প্রমুখ। মৎস্য সপ্তাহ পালন উপলক্ষে বর্ণাঢ্য র‌্যালি ও আলোচনা সভায় অংশ গ্রহণ করেন বিভিন্ন অফিসের কর্মকর্তা, ন্থানীয় রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ ও মৎস্যজীবীসহ বিভিন্ন শ্রেণির পেশার দুই শতাধিক লোক।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা