kalerkantho

বুধবার । ২১ আগস্ট ২০১৯। ৬ ভাদ্র ১৪২৬। ১৯ জিলহজ ১৪৪০

সিঁধ কেটে ঘরে ঢুকে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের পর হত্যাচেষ্টা

ধুনট (বগুড়া) প্রতিনিধি   

১৭ জুলাই, ২০১৯ ১৯:৪১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সিঁধ কেটে ঘরে ঢুকে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের পর হত্যাচেষ্টা

বগুড়ার শেরপুর উপজেলায় সিঁধ কেটে ঘরে ঢুকে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের পর তাকে গলা কেটে হত্যার চেষ্টা চালিয়েছে দুর্বৃত্তরা। পরে গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে তাকে শেরপুর উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। মঙ্গলবার মধ্যরাতের উপজেলার সুঘাট ইউনিয়নের গুয়াগাছি গ্রামে ঘটনা ঘটে।

বুধবার দুপুরে শেরপুর থানার পুলিশ পরিদর্শক (ওসি তদন্ত) বুলবুল ইসলাম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। এসময় ঘটনার সাথে জড়িত সন্দেহে পাশের জয়লা জুয়ান গ্রামের আব্দুল মতিনের ছেলে শাকিল আহম্মেদ (১৮) নামে এক বখাটেকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

থানা সূত্রে জানা যায়, উপজেলার সুঘাট ইউনিয়নের গুয়াগাছি গ্রামের এক ব্যবসায়ীর মেয়ে জয়লা গুয়াগাছি উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী অন্যান্য দিনের ন্যায় মঙ্গলবার রাতে পড়াশোনা শেষে ঘুমিয়ে পড়েন। রাত ১টার দিকে ৩-৪ জন অজ্ঞাত যুবক সিঁধ কেটে ওই ছাত্রীর ঘরে প্রবেশ করে। একপর্যায়ে ওই ছাত্রী ঘুম থেকে জেগে ওঠে বিষয়টি টের পায়। পরে দুর্বৃত্তরা অস্ত্রের মুখে ছাত্রীকে জিম্মি করে ধর্ষণ করে। এসময় ওই ছাত্রী চিৎকার করলে দুর্বুত্তদের হাতে থাকা ধারালো চাকু দিয়ে গলা কেটে  হত্যার চেষ্টা করে। তবে অন্যান্য ঘরে ঘুমিয়ে থাকা পরিবারের লোকজন জেগে উঠায় দুর্বৃত্তরা পালিয়ে যায়। পরিবারের পক্ষ থেকে ঘটনাটি থানা পুলিশকে জানানোর পাশাপাশি আহত স্কুলছাত্রীকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

শেরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগে দায়িত্বে থাকা চিকিৎসক ডাঃ মাহজাবিন আক্তার জানান, ওই স্কুলছাত্রীর গলায় ধারালো অস্ত্রের আঘাত ও কাটা দাগ রয়েছে। এছাড়া ধর্ষণের বিষয়টি পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর নিশ্চিত করে বলা সম্ভব হবে বলে জানান চিকিৎসক।

স্কুলছাত্রীর পরিবারের অভিযোগ, পুলিশের হাতে গ্রেফতার হওয়া শাকিল বেশ কিছুদিন ধরে স্কুলে আসা-যাওয়ার পথে এই ছাত্রীকে উত্ত্যক্ত করে আসছিল। এমনকি নানা কায়দায় তাকে প্রেমের প্রস্তাব দেয়া হয়। কিন্তু ওই বখাটের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় তার নেতৃত্বেই উক্ত ঘটনাটি ঘটানো হয়েছে বলে তারা মনে করছেন।

শেরপুর থানার পুলিশ পরিদর্শক (ওসি তদন্ত) বুলবুল ইসলাম এ তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, অভিযোগটি গুরুত্বের সঙ্গে খতিয়ে দেখা হচ্ছে। এছাড়া এ ঘটনায় থানায় একটি মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। আশা করি দ্রুততম সময়ের মধ্যেই ঘটনায় জড়িত প্রকৃত অপররাধীদের আইনের আওতায় আনা সম্ভব হবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা