kalerkantho

শুক্রবার । ২৩ আগস্ট ২০১৯। ৮ ভাদ্র ১৪২৬। ২১ জিলহজ ১৪৪০

একটি অবহেলিত গ্রামীণ সড়কের কথা

সাপাহার (নওগাঁ) প্রতিনিধি   

১৬ জুলাই, ২০১৯ ১৭:৩৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



একটি অবহেলিত গ্রামীণ সড়কের কথা

দেশের অন্যান্য এলাকার মতো নওগাঁর সাপাহার উপজেলার সর্বত্র উন্নায়নের ছোঁয়া লাগলেও উপজেলার সাপাহার-রহনপুর হাইরোডের পার্শ্ব রাস্তা বাসুল ডাঙ্গা গ্রাম হয়ে পিছল ডাঙ্গা গ্রামীণ রাস্তা প্রায় ২/৩ কিলোমিটার রাস্তায় কোনো হেয়ারিং কিংবা পাকাকরণ হয়নি। ফলে প্রতিবছর বর্ষা মৌসুমে সদর ইউনিয়নের প্রায় একাংশ জনগোষ্ঠীর মধ্যে ভোগান্তি চরমে ওঠে। 

এলাকাবাসী জানিয়েছেন, নওগাঁ ১ আসনের সংসদ সদস্য ও বাংলাদেশ সরকারে খাদ্যমন্ত্রী বাবু সাধন চন্দ্র মজুমদার এমপি তার নির্বাচনী এলাকায় গ্রামীণ রাস্তা-ঘাটের ব্যাপক উন্নয়ন করলেও গ্রামীণ জনপদে ওই রাস্তাটি রয়ে যায় একেবারে অবহেলিত। এ ছাড়া বাসুল ডাঙ্গা হতে পিছল ডাঙ্গা পর্যন্ত ওই রাস্তার উভয় পার্শ্বে রয়েছে শত শত বিঘা জমিতে আম বাগান, প্রতিবারের ন্যায় এবারেও বর্ষা মৌসুমে বাগান মালিকগণ তাদের বাগানের উৎপাদিত আম নিয়ে পড়েছেন চরম বিপাকে। বহু কষ্টে তাদের বাগানের আমগুলোকে উপজেলা সদরের আমের আড়তে আনতে হচ্ছে তাদের। এতে প্রতিটি বাগান মালিকদের খরচ অনেকাংশে বৃদ্ধি পেয়েছে।

সাপাহার সদর ইউনিয়নের বাসুল ডাঙ্গা, পিছল ডাঙ্গা, মধ্য পাড়া, সাহাবাজপুর, মলপাড়া, পানিতইড় সহ বিভিন্ন গ্রামের হাজার হাজার মানুষ যাতায়াত করে থাকে ওই পথে। সদর ইউনিয়নের পিছল ডাঙ্গা গ্রাম হতে জাতীয় গুরুত্বপূর্ন সড়ক সহ বিভিন্ন সড়কে যোগাযোগের জন্য সকল রাস্তাগুলি ইতোমধ্যেই পাকাকরণ করা হয়েছে। অথচ পিছলডাঙ্গা অত্র ইউনিয়নের সব চেয়ে ঘনবসতি ও গুরুত্বপূর্ণ গ্রাম হলেও গ্রামীণ জনপদের ওই রাস্তাটির উন্নয়ন হয়নি এখনও। রাস্তাটির উন্নয়ন না হওয়ায় ওই সব এলাকার মানুষ বর্ণনাতীত কষ্ট করে ওই পথে যাতায়াত করে থাকেন। 

শিগগিরই সাপাহার সদর ইউনিয়নের ওই রাস্তাটি পাকাকরণের মধ্য দিয়ে জনগণের কষ্ট দূর করার জন্য এলাকাবাসী জাতীয় সংসদ সদস্য ও খাদ্যমন্ত্রীসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট আকুল আবেদন করেছেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা