kalerkantho

শুক্রবার । ২৩ আগস্ট ২০১৯। ৮ ভাদ্র ১৪২৬। ২১ জিলহজ ১৪৪০

স্কুল মাঠে জলাবদ্ধতা, ভোগান্তিতে শিক্ষার্থীরা

নন্দীগ্রাম (বগুড়া) প্রতিনিধি   

১৬ জুলাই, ২০১৯ ১৭:২৪ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



স্কুল মাঠে জলাবদ্ধতা, ভোগান্তিতে শিক্ষার্থীরা

সামান্য বৃষ্টিতেই বগুড়ার নন্দীগ্রাম উপজেলার আমড়া গোহাইল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়। ফলে শিক্ষার্থীর ও শিক্ষকদের পোহাতে হয় চরম দুর্ভোগ।

সরেজমিন দেখা গেছে, স্কুলের মাঠ নিচু হওয়ার কারণে বৃষ্টির পানি ঠিকমতো নিষ্কাশন হয় না। মাঠটির বেশির ভাগ অংশই জলমগ্ন হয়ে আছে। অল্প কিছু অংশে পানি না থাকলেও তা কর্দমাক্ত ও স্যাঁতসেঁতে। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা থাকলেও শিক্ষার্থীরা শ্রেণিকক্ষ ছেড়ে মাঠে নামতে পারছে না। জলাবদ্ধতার শ্রেণিকক্ষে যাতায়াতের সময় শিক্ষার্থীরা অনেকেই পা পিছলে পড়ে যায়। এতে নোংরা হয় তাদের জামা-কাপড়। এ ছাড়া মাঠে জমে থাকা কাদাপানির কারণে শিক্ষার্থীরা শরীরচর্চা ও জাতীয় সংগীত গাইতে পারে না। এতে করে স্কুলের শিক্ষা কার্যক্রম ব্যাহত হচ্ছে। এ পরিস্থিতিতে দ্রুততার সঙ্গে স্কুল মাঠের জলাবদ্ধতা নিরসনের জোর দাবি জানান শিক্ষার্থীরা।

তৃতীয় শ্রেণির ফাতেমা খাতুনসহ কয়েকজন শিক্ষার্থী বলেন, তারা বাড়িতে বদ্ধ পরিবেশে থাকে, আবার বিদ্যালয়ে এসে শ্রেণিকক্ষেও একই অবস্থা। দ্রুত মাঠটি সংস্কার করার দাবি জানায় তারা।

স্থানীয়রা জানায়, মাঠটি শুধু স্কুলের ছাত্র-ছাত্রীদেরই নয়, গ্রামের যুবকদেরও খেলাধুলার মাঠ। মাঠটি দীর্ঘদিন ধরে সংস্কার না করা এবং পানি নিষ্কাশনের নালা বন্ধ করে পুকুরসহ বাড়ি-ঘর নির্মাণ করায় জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে। কিন্তু জলাবদ্ধতা নিরসনে বাস্তবভিত্তিক কোনো পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে না।

প্রধান শিক্ষক জহুরুল ইসলাম বলেন, এই স্কুলে ১১৩ জন শিক্ষার্থী রয়েছে। দীর্ঘ ৩ বছর ধরে বর্ষার সময় মাঠে পানি জমে থাকায় স্কুলের শিক্ষার্থীরা মাঠে খেলাধুলা করতে পারছে না। বিষয়টি প্রাথমিক শিক্ষা অফিসারসহ অত্র ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানকে জানানো হয়েছে।

উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম জানান, মাঠটি নিচু হওয়ার কারণে বর্ষার সময় বৃষ্টির পানিতে মাঠে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়। এ জন্য অত্র ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের সাথে আলোচনা করে সমাধানের চেষ্টা করা হচ্ছে।

থালতা মাজগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল মতিন জানান, স্কুলের সামনে ওই গ্রামের এক ব্যক্তি ইটের প্রাচীর দেওয়ার কারণে এ সমস্যা দেখা দিয়েছে। তবে বর্ষার পরেই মাঠে মাটি দিয়ে উঁচু করে দেওয়া হবে। তাহলে মাঠটি জলাবদ্ধতার কবল থেকে কিছুটা রক্ষা পাবে।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা