kalerkantho

সোমবার। ১৯ আগস্ট ২০১৯। ৪ ভাদ্র ১৪২৬। ১৭ জিলহজ ১৪৪০

উখিয়ায় স্কুলের দেয়ালসহ বিভিন্ন স্থানে আঁকা অদ্ভুত সাংকেতিক চিহ্নে আতঙ্ক

নিজস্ব প্রতিবেদক, কক্সবাজার    

১৬ জুলাই, ২০১৯ ০৫:০১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



উখিয়ায় স্কুলের দেয়ালসহ বিভিন্ন স্থানে আঁকা অদ্ভুত সাংকেতিক চিহ্নে আতঙ্ক

কক্সবাজারের উখিয়া উপজেলার রত্নাপালং ইউনিয়নের কয়েকটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের দেয়ালসহ বিভিন্ন স্থানে কে বা কারা অঙ্কন করেছে অদ্ভুত এক ধরনের সাংকেতিক চিহ্ন। দেয়ালে আঁকা এ সাংকেতিক চিহ্ন নিয়ে এলাকায় ভীতিকর পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। 

স্থানীয় লোকজন জানায়, সব স্থানে একই ধরনের চিহ্নগুলো কালো রং দিয়ে আঁকা হয়েছে। তারা অনেক চেষ্টা করেও এ চিহ্নের কোনো অর্থ খুঁজে পাচ্ছে না। হঠাত্ করে দেয়ালে এ ধরনের সাংকেতিক চিহ্ন অঙ্কন নিয়ে তারা বিভিন্ন ধরনের মন্তব্য করছে। অনেকের ধারণা, সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডে জড়িত বা জঙ্গিরা এ ধরনের চিহ্ন আঁকতে পারে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, গতকাল সোমবার সকালে উখিয়া উপজেলার রত্নাপালং ইউনিয়নের রত্নাপালং সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, হাকিম আলী কেজি স্কুল ও পালং মডেল হাই স্কুলের দেয়ালে এক বর্ণের সাংকেতিক চিহ্ন দেখতে পায় স্থানীয় লোকজন। একই চিহ্ন দেয়ালের বিভিন্ন স্থানে আঁকা হয়েছে। তবে কালো রং দিয়ে আঁকা চিহ্নগুলো অনেকটা বার্মিজ বর্ণের আদলে লেখা।

এদিকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের দেয়াল ছাড়াও রত্নাপালং ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আসহাব উদ্দীন ও সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ আলমগীরের বাড়ির সামনেও এ ধরনের সাংকেতিক চিহ্ন আঁকা হয়েছে। হাকিম আলী কেজি স্কুলের উপাধ্যক্ষ একরামুল হক টিটু বলেন, ‘বিদ্যালয়ের দেয়ালে যে সাংকেতিক চিহ্নটি আঁকা হয়েছে, তা আমি এই ইউনিয়নের আরো অন্তত ২৫টি স্থানে দেখেছি। এ ধরনের চিহ্ন আঁকা নিয়ে এলাকায় আতঙ্ক দেখা দিয়েছে।’ তিনি আরো বলেন, ‘বিদ্যালয়ের দেয়াল ছাড়াও রত্নাপালং ইউনিয়নে অবস্থিত রোহিঙ্গা ক্যাম্পে কর্মরত কয়েকটি এনজিও অফিসের সামনেও এ ধরনের চিহ্ন অঙ্কন করা হয়েছে।’ 

এ বিষয়ে উখিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. নিকারুজ্জামান চৌধুরী বলেন, ‘কয়েকটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের দেয়ালে সাংকেতিক চিহ্ন আঁকার বিষয়টি অবহিত হয়েছি। এ ব্যাপারে খতিয়ে দেখা হচ্ছে।’ উখিয়া থানার উপপরিদর্শক প্রভাত কুমার বড়ুয়া বলেন, ‘শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানসহ গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনার দেয়ালে সাংকেতিক চিহ্ন অঙ্কনের খবর পেয়ে সেখানে পুলিশের টিম পাঠানো হয়। তারা দেয়ালে আঁকা চিহ্নগুলো দেখেছে, তবে কেউ চিহ্নগুলো বুঝতে পারছে না। বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হয়েছে।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা