kalerkantho

সোমবার। ১৯ আগস্ট ২০১৯। ৪ ভাদ্র ১৪২৬। ১৭ জিলহজ ১৪৪০

পরকীয়ায় বাধা দেওয়ায় খুন হয় কৃষক, ভাবি গ্রেপ্তার

শাজাহানপুর (বগুড়া) প্রতিনিধি   

১৬ জুলাই, ২০১৯ ০২:৫০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পরকীয়ায় বাধা দেওয়ায় খুন হয় কৃষক, ভাবি গ্রেপ্তার

ছবি: কালের কণ্ঠ

বগুড়ার শাজাহানপুর উপজেলার খোট্টাপাড়া ইউনিয়নের বড় চান্দাই গ্রামে ফোন করে ডেকে নিয়ে গিয়ে জাব্বারুল ইসলাম (৩০) নামে এক কৃষক হত্যার ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

পরকীয়ায় বাধা দেওয়ায় নৃশংসভাবে খুন করা হয়েছে মর্মে শুক্রবার রাতে নিহত জাব্বারুলের স্ত্রী জাকিয়া খাতুন বাদি হয়ে প্রতিবেশী লয়া মিয়ার ছেলে আব্দুল আজিজ (৩০) ও চাচাতো ভাইয়ের স্ত্রী স্মৃতি বেগম (২৮) কে এজাহারভুক্তসহ অজ্ঞাতনামা ৪ জনকে আসামি করে শাজাহানপুর থানায় মামলা দায়ের করেন।

জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক স্মৃতি বেগমকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে শনিবার দুপুরে আদালতে পাঠিয়েছে পুলিশ।

থানার ওসি আজিজ উদ্দিন জানান, নিহত জাব্বারুলের চাচাতো ভাই ফারুক হোসেন বিদেশে থাকার সুযোগে তার স্ত্রী স্মৃতি বেগমের সঙ্গে প্রতিবেশী আব্দুল আজিজের সঙ্গে পরকীয়ার সম্পর্ক গড়ে উঠে।

বিষয়টি জানাজানি হলে জাব্বারুল তাদেরকে বাধা দেয়। এ নিয়ে তাদের মধ্যে দ্বন্দের সৃষ্টি হয়। এই দ্বন্দ্বের জের ধরেই পরিকল্পিতভাবে জাব্বারুলকে হত্যা করা হয়েছে। স্মৃতি বেগমকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। মামলার প্রধান আসামি আব্দুল আজিজসহ অন্যান্য আসামিদেরকে গ্রেপ্তারের জোর চেষ্টা চলছে।

উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার রাত পৌনে ১০টার দিকে উপজেলার খোট্টাপাড়া ইউনিয়নের বড়চান্দাই গ্রামের মৃত আব্দুল কুদ্দুসের ছেলে কৃষক জাব্বারুল (৩০) কে ফোনে নিজ বাড়ির পেছনে ডেকে নিয়ে গিয়ে পরিকল্পিতভাবে ধারাল অস্ত্রের উপর্যুপরি আঘাতে নৃশংসভাবে খুন কর হয়।

এ ঘটনায় জেলা পুলিশ সুপারসহ পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন এবং জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিহত জাব্বারুলের চাচাতো ভাই প্রবাসী ফারুক হোসেনের স্ত্রীকে আটক করেন।

নিহতের স্বজনরা জানান, বৃহস্পতিবার রাতে জাব্বারুল বাড়িতে খাওয়া-দাওয়া শেষ করে বাড়ির পাশে দোকানে পান খাওয়ার জন্য যায়। সেখানে অজ্ঞাতনামা ব্যক্তির ফোন পেয়ে নিজ বাড়ির পেছনে যায়। সেখানে পূর্ব থেকে ওঁৎ পেতে থাকা দুর্বৃত্তরা তাকে ধারাল অস্ত্র দিয়ে মাথা, ঘাড়সহ শরিরের ১৭টি স্থানে আঘাত করে নৃশংসভাবে খুন করা হয়।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা