kalerkantho

সোমবার । ২৬ আগস্ট ২০১৯। ১১ ভাদ্র ১৪২৬। ২৪ জিলহজ ১৪৪০

সংবাদ প্রকাশের জের

ইউএনওকে শাসালেন মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী   

১৬ জুলাই, ২০১৯ ০১:১২ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ইউএনওকে শাসালেন মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান

উপজেলা চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে সংবাদ প্রকাশের জের ধরে তানোরের ইউএনওকে শাসালেন মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান। স্থানীয় এমপি ওমর ফারুক চৌধুরীর উপস্থিতিতে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সোনিয়া সরদার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নাসরিন বানুকে দেখে নেওয়া হবে বলেও হুমকি দেন। ঘটনাটি ঘটে গতকাল সোমবার তানোর উপজেলা পরিষদের সভাকক্ষে মাসিক সমন্বয়সভায়। এ নিয়ে চরম ক্ষোভ বিরাজ করছে প্রশাসনের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মাঝে।

বিষয়টি নিয়ে ইউএনও নাসরিন বানু বলেন, ‘মহিলা ভাইস চেয়ারম্যানের বাড়ি নাকি কামারগাঁ এলাকায়। কিন্তু ওই খাদ্যগুদামে ধান কেনার সময় কেন তাঁকে জানানো হয়নি। তাই তিনি অনেক কথা বলেছেন। তবে এ নিয়ে আমি কোনো মন্তব্য করতে রাজি নই।’

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, গতকাল দুপুর ১২টার দিকে রাজশাহী-১ আসনের (তানোর-গোদাগাড়ী) এমপি ওমর ফারুক চৌধুরীর উপস্থিতিতে তানোর উপজেলা অডিটরিয়ামে মাসিক সমন্বয়সভা শুরু হয়। সভা শুরুর পরপরই উপজেলা চেয়ারম্যান লুত্ফর হায়দার রশিদ ময়না স্থানীয় এমপিকে উদ্দেশ করে বলেন, ‘আমার বিরুদ্ধে ইউএনও নিউজ করায় কোন সাহসে। আমার দায়িত্বে আগের ৩৬৯ মেট্রিক টন ধান কেনা কি খারাপ হয়েছিল?’ এরপর মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সোনিয়া সরদার উচ্চৈঃস্বরে বলতে থাকেন, ‘আমার বাড়ি কামারগাঁ এলাকায়। কিন্তু ওই গুদামে ধান কেনার সময় ইউএনও আমাকে খবর দেননি। আমাকে মোবাইলও করেননি। আবার উপজেলা চেয়ারম্যান ধান কিনতে বাধা দিয়েছেন বলে পত্রিকায় খবর হয়। তিনি এত সাহস পান কী করে? এভাবে চলতে থাকলে আপনাকে দেখে নেওয়া হবে।’

জবাবে ইউএনও বলেন, ‘ধান কেনার জন্য এলাকায় মাইকিং করা হয়েছিল। এরপর প্রকৃত কৃষকরা ধান বিক্রির জন্য কার্ড জমা দেয়। কিন্তু এখন অভিযোগ করা হচ্ছে, কৃষকরা বাদ পড়েছে। এটা ঠিক নয়।’ 

তাঁর এ বক্তব্যের পরে হট্টগোল শুরু করে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সোনিয়াসহ উপজেলা চেয়ারম্যান ময়নার লোকজন।

পরে এমপি ওমর ফারুক চৌধুরী পরিস্থিতি শান্ত করে উপজেলা চেয়ারম্যানদের সঙ্গে সমন্বয় করে ধান কেনার নির্দেশ দেন ইউএনওকে। 

প্রসঙ্গত, তানোরে প্রকৃত কৃষকদের কাছ থেকে মাইকিং করে ধান কিনতে বাধা দেয় উপজেলা চেয়ারম্যান লুত্ফর হায়দার রশিদ ময়নার লোকজন। এ নিয়ে গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশিত হলে তোলপাড় শুরু হয়। গত ১০ জুলাই থেকে ধান কিনতে বাধা দেওয়া হয়।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা