kalerkantho

এক হাজার টাকার বাজি

বাজি ধরে সাঁতরাতে গিয়ে নিখোঁজ

পঞ্চগড় প্রতিনিধি   

১৫ জুলাই, ২০১৯ ২৩:০৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বাজি ধরে সাঁতরাতে গিয়ে নিখোঁজ

পঞ্চগড়ে বাজি ধরে সাঁতরে নদী পাড় হতে গিয়ে আসকান শেখ (৫২) নামে এক ব্যক্তি নিখোঁজ হয়েছে। নিখোঁজের একদিন পেরিয়ে গেলেও তাকে খুঁজে পাওয়া যায়নি। ঘটনাটি ঘটেছে জেলার বোদা উপজেলার বড়শশী ইউনিয়ন নাওতারি এলাকায়। নিখোঁজ আসকান শেখ ওই এলাকার ভিখু শেখের ছেলে।

স্থানীয়রা জানায়, রবিবার দুপুরে ওই এলাকার ইয়াকুব আলী ও শামীম নামের দুই ব্যক্তি আসকান শেখের সঙ্গে বাজি ধরে যে নাওতারি এলাকায় ঘোড়ামারা ও ছোট যমুনা নদীর মিলিত স্থান দিয়ে আসকান শেখ সাঁতরে পাড় হতে পাড়লে পাবে ১ হাজার টাকা। 

আর না হতে পারলে ইয়াকুব ও শামীমকে তার পালিত খাসি ছাগলটি দিয়ে দিতে হবে। বাজি মতো আসকান সাঁতার শুরু করে। কিছুদূর যাওয়ার পরই প্রবল স্রোতের পাকে পড়ে তলিয়ে যায় আসকান। তারপর তাকে দেখতে না পেয়ে স্থানীয় কয়েক খোঁজার জন্য পানিতে নামলেও স্রোতের কারণে সামনে যেতে পারেনি।

নিখোঁজের একদিন পেরিয়ে গেলেও এখনো তার খোঁজ পাওয়া যায়নি। এমনকি তাকে উদ্ধারের জন্য ফায়ার সার্ভিসসহ প্রশাসনকেও বিষয়টি জানানো হয়নি। স্থানীয়রা ধারণা করছেন নদীর যে স্রোত তাতে যেখানে নিখোঁজ হয়েছে সেখানে তাকে পাওয়া সম্ভব না। হয়তো স্রোতে ভেসে অনেক দূরে চলে গেছে। এ বিষয়ে নিখোঁজ আসকানের স্ত্রী ময়না আক্তারসহ পরিবারের সদস্যরা প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

আসকানের বড় ভাই আবু বক্কর বলেন, আমরা শুনলাম কার সঙ্গে যেন বাজি ধরে আসকান নদীতে সাঁতার শুরু করেছে। শেষ মাথায় যাওয়ার একটু আগেই তলিয়ে যায়। তারপর আমরা নেমে খুঁজেছি পাইনি। এখন আমরা কি করব ভেবে পাচ্ছি না। সিদ্ধান্তহীনতায় ভুগছি। 

তবে এ বিষয়ে বড়শশী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আফজাল হোসেনের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তার নাম্বারটি বন্ধ পাওয়া যায়।

বোদা থানার ওসি আবু হায়দার মো. আশরাফুজ্জামান জানান, কেও আমাদের অফিশিয়ালি বিষয়টি জানায়নি। তারপরও এমনটা শোনার পর ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়ে জানতে পারি যে ঘটনাটি সত্যি। নদীর যে স্থানে নিখোঁজ হয়েছেন ওই ব্যক্তি সেখানে প্রবল স্রোত ছিল। আমাদের বিষয়টি অফিশিয়ালি জানালে আমরা প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করব।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা