kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৮ জুলাই ২০১৯। ৩ শ্রাবণ ১৪২৬। ১৪ জিলকদ ১৪৪০

পদ্মায় তীব্র স্রোত

শিমুলীয়া-কাঁঠালবাড়ি নৌরুটে দুই ফেরির সংঘর্ষ

শিবচর (মাদারীপুর) প্রতিনিধি   

১২ জুলাই, ২০১৯ ১৭:১৬ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



শিমুলীয়া-কাঁঠালবাড়ি নৌরুটে দুই ফেরির সংঘর্ষ

পদ্মায় তীব্র স্রোতে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে শিমুলীয়া-কাঁঠালবাড়ি নৌরুটের লৌহজং টার্নিংয়ে দুই ফেরির মুখোমুখি সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে একটি ফেরির তলানীতে ছিদ্র হয়ে পানি ঢুকে প্রায় ডোবার উপক্রম হলেও অল্পের জন্য বড় কোনো দুর্ঘটনার হাত থেকে রক্ষা পেয়েছেন চার শতাধিক যাত্রী।

বিআইডব্লিউটিসি কাঁঠালবাড়ি ঘাট সূত্রে জানা যায়, বর্ষা মৌসুম চলমান থাকায় পদ্মায় স্রোতের গতিবেগ বাড়ছে। স্রোতের গতিবেগ বৃদ্ধির সাথে সাথে নদীতে পলি পড়ে বিভিন্ন স্থানে ডুবোচর সৃষ্টি হয়। এতে শিমুলীয়া-কাঁঠালবাড়ি নৌরুটে ফেরিগুলো সতর্কতার সাথে চলাচল করছে। সরু চ্যানেল দিয়ে ফেরিগুলো হালকা যানবাহন নিয়ে চলাচল করছিল। 

কয়েকদিন ধরে স্রোতের সাথে প্রচুর পরিমাণে পলি ভেসে এসে এ রুটের লৌহজং টার্নিংয়ের প্রবেশমুখে চর পড়ে ফেরি চলাচল ব্যাহত হচ্ছে। বৃহস্পতিবার রাতে কাঁঠালবাড়ি ইলিয়াস আহমেদ চৌধুরী ফেরি ঘাট থেকে কেটাইপ ফেরি কিশোরী ১০ টি ছোট গাড়ি, পাঁচটি ট্রাক ও দুই শতাধিক যাত্রী নিয়ে ছেড়ে যায়। এরপর রাত ১ টার দিকে লৌহজং টার্নিংয়ে প্রবেশ করে। 

এসময় শিমুলীয়া ঘাট থেকে ছেড়ে আসা ডাম্ব ফেরি রামশ্রী তীব্র স্রোতে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে কিশোরী ফেরির সাথে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে কিশোরী ফেরির তলানীতে ছিদ্র হয়ে ফেরিতে পানি উঠে প্রায় ডোবার উপক্রম হয়। তবে বড় কোনো দুর্ঘটনা ঘটার আগেই চালকরা ফেরি দুটি নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসেন। এতে অল্পের জন্য রক্ষা পায় উভয় ফেরির চার শতাধিক যাত্রী।

কেটাইপ ফেরি কিশোরীর যাত্রী ব্যববসায়ী তারক অধিকারী বলেন, আমাদের ফেরিটি নদীর মাঝের একটি মোড়ে আসলে বিপরীত দিক থেকে আসা অপর একটি ফেরির সাথে ধাক্কা লাাগে। এতে আমাদের ফেরিটির তলানী ছিদ্র হয়ে ফেরিতে পানি ঢুকতে থাকে। আমরা তা দেখে অনেক ভয় পেয়ে যাই। পরে ফেরি কর্তৃপক্ষ কোনো মতে জোড়াতালি দিয়ে ছিদ্র বন্ধ করে উত্তাল পদ্মা পাড়ি দিয়ে আমাদের শিমুলীয়া পৌঁছে দেয়।

কেটাইপ ফেরির মাস্টার ইনচার্জ মো. জামাল উদ্দিন বলেন, এমনিতেই সরু চ্যানেল দিয়ে ফেরি চালাতে হিমশিম খেতে হচ্ছে। তার ওপর তীব্র স্রোতে পলি ভেসে এসে লৌহজং টার্নিংয়ের প্রবেশমুখে ডুবোচর সৃষ্টি হয়েছে। একদিকে ডুবোচর অন্যদিকে স্রোতের তীব্রতা থাকায় ডাম্ব ফেরিটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে আমার ফেরিকে ধাক্কা দিয়েছিল। তবে এতে আমাদের কোনো ফেরি বা যাত্রীদের কোনো ক্ষতি হয়নি।

বিআইডব্লিউটিসি কাঁঠালবাড়ি ঘাট ম্যানেজার আ. সালাম বলেন, তীব্র স্রোতের কারণে লৌহজং টার্নিংয়ের প্রবেশমুখে দু'টি ফেরির সাথে সামান্য ধাক্কা লেগেছিল। তবে এতে কোনো দুর্ঘটনা ঘটেনি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা