kalerkantho

মঙ্গলবার। ১৬ জুলাই ২০১৯। ১ শ্রাবণ ১৪২৬। ১২ জিলকদ ১৪৪০

রামগঞ্জে যুবলীগের কমিটি নিয়ে ধোঁয়াশা

যুবদল নেতা এখন যুবলীগ?

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি   

২৭ জুন, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



রামগঞ্জে যুবলীগের কমিটি নিয়ে ধোঁয়াশা

ছবি: কালের কণ্ঠ

লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জ উপজেলা যুবলীগের নতুন আহবায়ক কমিটি ঘোষণা নিয়ে ধোঁয়াশা সৃষ্টি হয়েছে। জেলা যুবলীগের সভাপতি এ কে এম সালাহ উদ্দিন টিপু ও সাধারণ সম্পাদক আবদুল্লাহ আল নোমান অভিনন্দন জানিয়ে নতুন কমিটির নেতাদের সঙ্গে তোলা ফুলেল শুভেচ্ছা বিনিময়ের একটি যৌথ ছবি ফেসবুকে আপলোড করেছেন। তবে কমিটির নেতাদের চিঠি চিঠি দেওয়া হয়নি।
 
বুধবার (২৬ জুন) রাতে কমিটি ঘোষণার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন জেলা যুবলীগের ওই শীর্ষ দুই নেতা। তাদের ভাষ্যমতে, কমিটিতে সৌকত মাহমুদ শামছুকে আহবায়ক, সাইদুর রহমান মামুন ও এস এম মোজাম্মেল হককে যুগ্ম আহবায়ক করা হয়।
 
এদিকে অভিযোগ উঠেছে, নতুন কমিটির যুগ্ম আহবায়ক সাইদুর রহমান মামুন যুবদলের রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত। তিনি রামগঞ্জ উপজেলার ৭ নম্বর দরবেশপুর ইউনিয়ন যুবদলের ৪ নম্বর সহ সভাপতি হিসেবে কমিটিতে রয়েছে। ওই কমিটির চিঠি দলীয় সিনিয়র নেতাদের কাছেও রয়েছে। সেটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফেসবুকেও স্থানীয়ভাবে ছড়িয়ে পড়ছে।
 
নাম প্রকাশ না করার শর্তে রামগঞ্জের দুইটি ইউনিয়নের দায়িত্বশীল ৫ জন যুবলীগ নেতা জানায়, মামুনকে কমিটিতে রাখায় বিতর্ক সৃষ্টি হয়েছে। মুখে মুখে শুনে আর ফেসবুকে তারা নতুন কমিটির কথা দেখছেন। নতুন কমিটির তিন নেতার কাছে কমিটির চিঠি নেই বলেও তারা জানিয়েছে। এ নিয়ে নেতাকর্মী ও সমর্থকরা ধোঁয়াশার মধ্যে রয়েছে।
 
দরবেশপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি নুর হোসেন পাটওয়ারী বলছেন, তিনি ২৬ বছর আওয়ামী লীগের বিভিন্ন পদে দায়িত্ব পালন করছেন। তিনি কখনো মামুনকে আওয়ামী লীগের মিছিল-মিটিংসহ কোনো কর্মসূচিতে দেখেননি। সে যুবদলের সহ সভাপতি হিসেবে কমিটিতে রয়েছে।
 
দরবেশপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য মিজানুর রহমান জানান, যুবদলের একজন নেতা কীভাবে হঠাৎ যুবলীগ বনে যায় তা বোধগম্য নয়। তাকে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা মেনে নেবে না। প্রয়োজনে আমরা গণপদত্যাগ করবো।
 
সাইদুর রহমান মামুন বলেন, আমার পরিবারের লোকজন আওয়ামী লীগের রাজনীতি করে। তবে আমি বিগত দিনে ছাত্রলীগ বা আওয়ামী লীগের কোন কমিটিতে ছিলাম না। যুবদলের নেতা হিসেবে আমার বিরুদ্ধে অপ-প্রচার চালানো হচ্ছে। নতুন কমিটির চিঠি জেলা নেতাদের কাছে রয়েছে বলেও জানান তিনি।
 
জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক আবদুল্লাহ আল নোমান বলেন, মামুন যুবদলের কমিটিতে রয়েছে বলে আমি শুনেছি। তবে কেউ সুনির্দিষ্ট অভিযোগ দিতে পারেনি। সংগঠনকে গতিশীল করতে নতুন কমিটি করা হয়েছে।
 
জানতে চাইলে লক্ষ্মীপুর যুবলীগের সভাপতি এ কে এম সালাহ উদ্দিন টিপু বলেন, রামগঞ্জে নতুন কমিটি দেওয়া হয়েছে। মামুনের বিরুদ্ধে একটি পক্ষ লেগেছে। তার যুবদলের কমিটিতে থাকার অভিযোগ সঠিক নয়।
 
প্রসঙ্গত, ২০১৬ সালে এমরান হোসেন এমুকে আহবায়ক, সৌকত মাহমুদ শামছু ও মোস্তাফিজুর রহমান ভূঁইয়া সুমনকে যুগ্ম আহবায়ক করে ২১ সদস্যবিশিষ্ট কমিটি দেওয়া হয়। পরের বছরের ১৭ মে এমরান হোসেন মৃত্যুবরণ করেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা