kalerkantho

শনিবার । ২৪ আগস্ট ২০১৯। ৯ ভাদ্র ১৪২৬। ২২ জিলহজ ১৪৪০

সুশীল বৈদ্যের হাত থেকে বাঁচতে চায় এলাকাবাসী

কোটালীপাড়া (গোপালগঞ্জ) প্রতিনিধি   

২৬ জুন, ২০১৯ ১৮:৪৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সুশীল বৈদ্যের হাত থেকে বাঁচতে চায় এলাকাবাসী

মাদারীপুরের রাজৈর ও গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়া উপজেলার সীমান্তবর্তী এলাকায় প্রতিরাতেই বসে মাদক ও অসামাজিক কাজের আসর। এলাকার কেউ বাধা দিলেই তার ওপর চলে অমানুষিক নির্যাতন। যার ফলে ভয়ে কেউ বাধা দিচ্ছে না। আর এসব অসামাজিক কাজকর্মের কারণেই দিনদিন এলাকার যুবসমাজ ধ্বংস হচ্ছে বলে জানিয়েছে এলাকাবাসী। 

জানা গেছে, কোটালীপাড়া উপজেলার কলাবাড়ি ইউনিয়নের বৈকণ্ঠপুর গ্রামের জুরান বৈদ্যের ছেলে সুশীল বৈদ্য (৪৫) দীর্ঘদিন ধরে পার্শ্ববর্তী রাজৈর উপজেলার হিজলবাড়ি গ্রামের প্রেম চাঁদ বৈদ্যের বাড়ি ও নাড়ুরবাড়ি বাজারে বসে মাদক ও নারীদের নিয়ে অসামাজিক কার্যক্রম চালিয়ে আসছে। এ ব্যাপারে এলাকার কোনো ব্যক্তি বাধা দিলে তাকে সুশীল বৈদ্য ও তার লোকজন নির্যাতন চালায়। যার ফলে এলাকাবাসী সুশীল বৈদ্য ও তার লোকজনের ভয়ে প্রতিবাদ করতে পারছে না। এমনকি অনেকে নির্যাতনের শিকার হয়েও আইনের আশ্রয় নিতে পারেনি। তাই সুশীল বৈদ্যের হাত থেকে বাঁচতে এলাকাবাসী প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছে। 

বৈকণ্ঠপুর গ্রামের যুগল বৈদ্য বলেন, সুশীল বৈদ্য দীর্ঘদিন ধরে এলাকায় মাদক ও নারীদের দিয়ে ব্যবসা করে আসছে। এলাকায় কেউ প্রতিবাদ করলেই তাকে নির্যাতন করে। আমি প্রতিবাদ করায় গত মঙ্গলবার সুশীল বৈদ্যের ছেলে প্রসেনজিৎ বৈদ্য ও ভাগ্নে প্রদীপ বৈদ্য আমাকে মারধর করে। 

একই গ্রামের শক্তিপদ বৈদ্য ও রণজিৎ বৈদ্য বলেন, সুশীল বৈদ্য দীর্ঘ প্রায় ১০ বছর ধরে এলাকায় অসামাজিক কাজ চালিয়ে আসছে। তার এই কাজকর্মে এলাকার যুবসমাজ ধবংস হয়ে যাচ্ছে। আমরা এলাকাবাসী সুশীল বৈদ্যের হাত থেকে বাঁচতে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছি। 

এ ব্যাপারে জানার জন্য সুশীল বৈদ্যের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি। তবে তার ছেলে প্রসেনজিৎ বৈদ্য বলেন, যারা আমার বাবার বিরুদ্ধে মাদক ও অসামাজিক কার্যক্রমের অভিযোগ এনেছে তাদের সাথে আমাদের জমি-জমা নিয়ে বিরোধ আছে। তাই তারা আমার বাবার বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ দিচ্ছে। 

কোটালীপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত ওসি মো. জাকারিয়া বলেন, সুশীল বৈদ্যের বিষয়টি আমি লোকমুখে শুনেছি। সে যে স্থানে বসে অসামাজিক কার্যক্রম চালায় বলে এলাকাবাসী মৌখিকভাবে অভিযোগ করেছে সে এলাকাটি রাজৈর থানায় পড়েছে। তাই আমি রাজৈর থানার সঙ্গে কথা বলে সুশীলের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করব।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা