kalerkantho

সোমবার । ২২ জুলাই ২০১৯। ৭ শ্রাবণ ১৪২৬। ১৮ জিলকদ ১৪৪০

আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের গুলিতে নিহত ১

নিজস্ব প্রতিবেদক, নোয়াখালী   

২৬ জুন, ২০১৯ ০০:৪৪ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের গুলিতে নিহত ১

নোয়াখালী বেগমগঞ্জ উপজেলায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে শাহাদাত হোসেন (২৯) নামে এক যুবক নিহত হয়েছে। মঙ্গলবার বিকাল ৫টার দিকে ওই উপজেলার চৌমুহনী পৌরসভার হাজীপুর গ্রামে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। নিহত শাহাদাত হোসেন ওই পৌরসভার হাজীপুর গ্রামের খালাসী বাড়ির কামাল হোসেন চৌধুরী মিয়ার ছেলে। সে স্থানীয় যুবলীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত ছিল।
 
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, জেলার বেগমগঞ্জ উপজেলার হাজিপুরে স্থানীয় যুবলীগের সম্রাট গ্রুপ ও সুমন গ্রুপের নেতাকর্মীদের মধ্যে দীর্ঘদিন যাবৎ আধিপত্য বিস্তার নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। এ বিরোধের জের ধরে মঙ্গলবার বিকেলে সম্রাট গ্রুপ সমর্থিত কর্মীরা হাজিপুর কালামিয়ার পুল সংলগ্ন স্থানে সুমন গ্রুপ সমর্থিত যুবলীগ কর্মী ও হাজিপুর গ্রামের কামাল চৌধুরীর ছেলে শাহাদাত হোসেন (২৫)কে প্রকাশ্যে গুলি করে। গুরুতর আহত অবস্থায় এলাকাবাসী তাকে উদ্ধার করে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করে। এ ঘটনায় এলাকায় থমথমে ভাব বিরাজ করছে। ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।
 
অপরদিকে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে নিহত শাহাদাতের স্বজনরা জানায়, শাহাদাত দুপুরে বাড়ি থেকে খাবার খেয়ে পার্শ্ববর্তী কতালার দোকানে চা খেতে এলে সেখানে আকস্মিক তিনটি মোটরসাইকেল নিয়ে স্থানীয় সন্ত্রাসী ও মাদক কারবারী সম্রাট ও তার সহযোগী শুভ ও মিন্টুর নেতৃত্বে ৭/৮ জন এসে শাহাদাতকে একা পেয়ে চা দোকান থেকে উঠিয়ে নিয়ে গিয়ে গুলি করে তারা দ্রুত মোটরসাইকেল নিয়ে পালিয়ে যায়। একটি বুলেট তার বুক ভেদ করে পিঠ দিয়ে বেরিয়ে যায়। দ্রুত তাকে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে আনা হলে কর্তব্যরত ডাক্তাররা তাকে মৃত ঘোষণা করে। 
 
উল্লেখ্য, বিবাদমান ২টি গ্রুপের মধ্যে গত কয়েক বছর যাবৎ বেশ কয়েকটি সংঘর্ষ ও গোলাগুলির ঘটনা ঘটে। এ সময় অনেক নেতা-কর্মী আহত হয়।
 
এ বিষয়ে বেগমগঞ্জ থানার (ওসি) তদন্ত নুরে আলম জানান, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে মাদক ও আধিপত্য বিস্তার নিয়ে সংঘর্ষে শাহাদাত হোসেন নিহত হতে পারে।  এ বিষয়ে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তিনি আরো জানান, লাশ উদ্ধার করে  ময়নাতদন্তের জন্য নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করা হবে। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা