kalerkantho

সোমবার। ১৯ আগস্ট ২০১৯। ৪ ভাদ্র ১৪২৬। ১৭ জিলহজ ১৪৪০

শীতলক্ষ্যার তীরে গড়ে ওঠা ৩৫টি অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি   

২৪ জুন, ২০১৯ ২২:২৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



শীতলক্ষ্যার তীরে গড়ে ওঠা ৩৫টি অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ

নারায়ণগঞ্জের কাঁচপুরে শীতলক্ষ্যা নদীর পূর্ব তীরে গড়ে ওঠা অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ অভিযান দ্বিতীয় দিনের মতো পরিচালনা করেছে বিআইডাব্লিউটিএ নারায়ণগঞ্জ নদী বন্দর কর্তৃপক্ষ।

আজ সোমবার সকাল দশটা থেকে উচ্ছেদ অভিযান শুরু করে বিকেল ৪টা পর্যন্ত একটি কারখানার গোডাউন, পাকা ভবন, গাইড ওয়ালসহ ৩৫টি স্থাপনা উচ্ছেদ করে গুড়িয়ে দেওয়া হয়।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও নৌ পরিবহন মন্ত্রণালয়ের উপ সচিব মনিরুজ্জামানের নেতৃত্বে শীতলক্ষ্যায় দিনের মতো উচ্ছেদ অভিযানটি পরিচালিত হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন বিআইডাব্লিউটিএ'র নারায়ণগঞ্জ নদী বন্দরের যুগ্ম পরিচালক গুলজার আলী, উপ-পরিচালক মো. শহিদুল্লাহসহ অন্যান্য কর্মকর্তারা।

এ সময় একটি জাহাজ, একটি ভেকু, একটি টাগ বোটসহ বিপুল সংখ্যক পুলিশ, আনসার সদস্য ও বিআইডব্লিউটিএর কর্মকর্তা-কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন।

নির্বাহি ম্যাজিস্ট্রেট ও নৌ পরিবহন মন্ত্রণালয়ের উপ সচিব মনিরুজ্জামান জানান, সোমবার বিকেল ৪টা পর্যন্ত শীতলক্ষ্যার পূর্ব তীর দখল করে গড়ে ওঠা স্বদেশ কেমিক্যাল কোম্পানির গোডাউন, জেটি, পাকা ভবনসহ ৩৫ টি স্থাপনা গুড়িয়ে দেওয়া হয়। নদী দখল করে জেটি নির্মাণ করায় স্বদেশ কেমিক্যাল কোম্পানির ম্যানেজার তানভীরকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে ১২ দিনের কারাদণ্ড প্রদান করে ভ্রাম্যমাণ আদালত।

বিআইডাব্লিউটিএর নারায়ণগঞ্জ নদী বন্দরের উপ-পরিচালক মো. শহিদুল্লাহ জানান, গত দুদিনে শীতলক্ষ্যার কাঁচপুরে পরিচালিত অভিযানে দুটি কারখানার গোডাউন, একটি তিন তলা ভবন, একটি দোতলা ভবনসহ ৬৫টি অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়। এ সময় নদীর ২ একর জমি উদ্ধার করে নদীকে ফিরিয়ে দেওয়া হয়।

বিআইডব্লিউটিএর নারায়ণগঞ্জ নদী বন্দরের যুগ্ম পরিচালক মো. গুলজার আলী জানান, শীতলক্ষ্যার তীরে ৫০১১টি সীমানা পিলার নিয়ে আমাদের আপত্তি রয়েছে। সিএস ও আরএস অনুযায়ী উচ্চ আদালতের নির্দেশে ধারাবাহিকভাবে এ উচ্ছেদ অভিযান চলছে। নদীর তীর দখল করে গড়ে ওঠা সবরকমের স্থাপনা উচ্ছেদ করা হবে। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা