kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৩ জুলাই ২০১৯। ৮ শ্রাবণ ১৪২৬। ১৯ জিলকদ ১৪৪০

নারায়ণগঞ্জে গুঁড়িয়ে দেওয়া হলো রহমতউল্লাহ মুসলিম ইনস্টিটিউট ভবন

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি   

২১ জুন, ২০১৯ ০২:৪৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নারায়ণগঞ্জে গুঁড়িয়ে দেওয়া হলো রহমতউল্লাহ মুসলিম ইনস্টিটিউট ভবন

নারায়ণগঞ্জ শহরের ২নং রেল গেইট সংলগ্ন রহমতউল্লাহ মুসলিম ইনস্টিটিউট ভবন গুঁড়িয়ে দিয়েছে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন। গতকাল ২০ জুন বৃহস্পতিবার সকালে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র ডা. সেলিন হায়াত আইভীর ব্যক্তিগত সহকারী আবুল হোসেনের নেতৃত্বে উচ্ছেদ অভিযানটি পরিচালনা করা হয়। এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন নাসিকের পরিচ্ছন্ন পরিদর্শক শ্যামল পাল। হঠাৎ ভবনটি ভেঙে দেওয়ায় ওই মার্কেটের ব্যবসায়ীরা কিংকর্তব্যবিমূঢ় হয়ে পড়েন। এসময় ঘটনাস্থলে অনেককে কান্না করতে দেখা গেছে।

নাসিক কর্মকর্তাদের মাধ্যমে জানা যায়, দীর্ঘদিন ধরেই ভবনটি সরিয়ে নেওয়ার জন্য চেষ্টা চালাচ্ছিল নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন। কিন্তু মামলার কারণে উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করতে পারেনি। সম্প্রতি নাসিকের পক্ষে মামলার রায় আসায় গতকাল উচ্ছেদ অভিযান চালায় নাসিক।

ব্যবসায়ীরা জানায়, তিনতলাবিশিষ্ট ভবনটিতে কনফেকশনারি, ফ্রিজ, এসি, সেলাই মেশিন, টেইলার, সুতা, রাবারের দোকানসহ প্রায় ৩৫টি দোকান ছিল। প্রতিটি দোকানেই লাখ টাকার পণ্য ছিল। ব্যবসায়ীদের দাবি তাদের কোনো সময় দেওয়া হয়নি। সকাল বেলা ভবন ভাঙার জন্য এক্সভেটার নিয়ে এসে সরাসরি ভাঙা শুরু করে। ব্যবসায়ীরা কোনো মালামাল সরাতে পারেননি। এতে করে ক্ষতির মুখে পড়েছেন তারা।

পপুলার ফুড কর্নারের মালিক মো. দলু মিয়া জানান, সকালে বাসায় ছিলাম। হঠাৎ একজন ফোন দিয়ে বলে ভবন ভাঙা হচ্ছে। দৌড়ে এসে দেখি কিচ্ছু নেই। ভাঙা শুরু হয়ে গেছে। আমার দোকান নিচ তালায় থাকায় সবার আগে আমার দোকান ভাঙা পড়েছে। ভেতরে লাখ টাকার মালামাল, টিভি, ফ্রিজ ছিল কিছুই বের করতে পারিনি। সব শেষ।

অভিযান প্রসঙ্গে কথা বলার জন্য মেয়র আইভীর পিএস আবুল হোসেনের সাথে মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করার কল করা হলেও তিনি ফোন ধরেননি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা