kalerkantho

বুধবার । ১৭ জুলাই ২০১৯। ২ শ্রাবণ ১৪২৬। ১৩ জিলকদ ১৪৪০

যশোরে হত্যা করতে গিয়ে গণপিটুনিতে নিহত ১, বোমায় আহত ২

যশোর অফিস   

১৮ জুন, ২০১৯ ২৩:২৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



যশোরে হত্যা করতে গিয়ে গণপিটুনিতে নিহত ১, বোমায় আহত ২

যশোরে হত্যা করতে গিয়ে সানি হোসেন (৩০) নামে এক সন্ত্রাসী গণপিটুনিতে নিহত হয়েছে। এ ঘটনায় দুইজন গুরুতর জখম হয়েছে। আহতরা হলেন- শহরের শংকরপুর এলাকার ফারুক হোসেনের ছেলে হৃদয় হাসান নয়ন (৩০) ও তার বন্ধু আনন্দ (৩০)।

আজ মঙ্গলবার রাতে যশোর কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনালে এ ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয়দের বরাত দিয়ে যশোর কোতোয়ালি থানার ওসি অপূর্ব হাসান বলেন, সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে যশোর কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল মসজিদের সামনে বসেছিলেন নয়ন, আনন্দসহ তার বন্ধুরা। ওই সময় দুটি মোটরসাইকেলযোগে শংকরপুর মুরগি ফার্ম এলাকার ধনু মিয়ার ছেলে সানিসহ কয়েক যুবক সেখানে গিয়ে একটি বোমার বিস্ফোরণ ঘটায়।

বোমার স্প্লিন্টারে নয়ন ও তার বন্ধু আনন্দ জখম হন। এরপর নয়নের অপর সঙ্গিরা ও টার্মিনালে থাকা লোকজন ধাওয়া করে সানিকে পাকড়াও করে। অন্যরা পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়। স্থানীয় লোকজন বোমায় আহত নয়ন ও আনন্দকে উদ্ধার করে যশোর জেনারেল হাসপাতালে পাঠায়।

ওসি জানান, ওই সময় সানিকে স্থানীয়রা ব্যাপক মারপিট করে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে গণপিটুনিতে আহত সানিকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়। হাসপাতালে ভর্তির কিছু সময় পর সানি মারা যায়।

এদিকে, হাসপাতালে ভর্তির পর অবস্থা গুরুতর হওয়ায় নয়নকে ঢাকায় স্থানান্তর করা হয়। 
এ ছাড়া চিকিৎসাধীন আনন্দকে প্রতিপক্ষ সানির লোকজন হাসপাতালে গিয়ে ফের মারধর করে বলে হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে।

যশোর জেনারেল হাসপাতালের ডা. অহেদুজ্জামান আজাদ বলেন, হাসপাতালে আনার পর তাকে অক্সিজেনসহ প্রয়োজনীয় সাপোর্ট দিলেও সানি তা রিসিভ করেনি। রাত পৌনে ৯টার দিকে তাকে মৃত ঘোষণা করা হয়। আহত নয়নের অবস্থা গুরুতর হওয়ায় তাকে ঢাকায় স্থানান্তর করা হয়েছে। আনন্দ চিকিৎসাধীন রয়েছে। তার অবস্থাও শংকামুক্ত নয়।

কোতোয়ালী থানার ওসি অপূর্ব হাসান বলেন, নিহত সানির বিরুদ্ধে ৮টি, আহত নয়নের বিরুদ্ধে ১৫-১৬টি এবং আনন্দের নামেও একাধিক মামলা রয়েছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা