kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৮ জুলাই ২০১৯। ৩ শ্রাবণ ১৪২৬। ১৪ জিলকদ ১৪৪০

৪ বছরেও চালু না-হওয়া তাড়াশ ফায়ার স্টেশনটি এখন মাদকসেবীদের আখড়া

তাড়াশ-রায়গঞ্জ (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি   

১৮ জুন, ২০১৯ ১৭:৫৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



৪ বছরেও চালু না-হওয়া তাড়াশ ফায়ার স্টেশনটি এখন মাদকসেবীদের আখড়া

সিরাজগঞ্জের তাড়াশে নির্মাণ কাজ শেষ হওয়ার প্রায় ৪ বছর পরও ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স স্টেশনটি আজও চালু হয়নি। আর চালু না হওয়ার কারণে পুরো ফায়ার সার্ভিস ভবনের আশপাশে আগাছায় ভরে উঠেছে। এর ফলে সেখানে রাতের আঁধারে মাদকসেবীদের হাট বসে। চলে দিনের পর দিন মাদক সেবন। 

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, মূলত ফায়ার সার্ভিস সিভিল ডিফেন্স স্টেশনটি চালু না হওয়ায় প্রাচীর টপকে মাদকসেবীরা নিরাপদে সেখানে মাদক গ্রহণ করে থাকে। 

জানা গেছে, গণপূর্ত মন্ত্রণালয় কর্তৃক বরাদ্দকৃত ১ কোটি ৭০ লাখ টাকা ব্যয়ে সিরাজগঞ্জ জেলার তাড়াশ পৌর সদরের নিমগাছী-তাড়াশ আঞ্চলিক সড়কের দক্ষিণ পাশে হাসপাতাল গেট এলাকায় ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স স্টেশনটির ২০১৪ সালে নির্মাণ কাজ করেন সিারজগঞ্জ গণপূর্ত বিভাগ। ২০১৫ সালের মাঝামাঝিতে এর নির্মাণ কাজ শেষ হয়। কিন্তু নির্মাণ কাজের প্রায় ৪ বছর পেরিয়ে গেলেও এখনো জনগুরুত্বপূর্ণ এ ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স স্টেশনটি আজও চালু হয়নি। ফলে উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় অগ্নিকাণ্ডসহ নানা ধরনের দুর্যোগে উপজেলাবাসীকে প্রায় ৩৫ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত উল্লাপাড়া উপজেলার ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স স্টেশনের ওপর নির্ভর করতে হচ্ছে। এতে দুর্ঘটনাস্থলে পৌঁছার আগেই তাড়াশ এলাকার মূল্যবান সহায়-সম্পদ পুড়ে ছাই যাচ্ছে।

সগুনা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ হেল বাকী বলেন, উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের প্রত্যন্ত গ্রামে ও উপজেলা সদরে প্রতিবছর অগ্নিকাণ্ডে সহায়-সম্পদ পুড়ে ছাই হয়ে গেলেও নিকটে ফায়ার সার্ভিস স্ট্শেন না থাকায় আগুন নেভানো সম্ভব হচ্ছে না। এতে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন তাড়াশ উপজেলাবাসী। তাই উপজেলাবাসীর দাবি নির্মিত ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স স্টেশনটি শিগগিরই চালু করা হোক। 

স্টেশনটি চালু না হওয়া প্রসঙ্গে সিরাজগঞ্জ জেলা গণপূর্ত বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী আনোয়ারুল আজিম বলেন, স্বরাষ্ট্র বিভাগকে তাড়াশ ফায়ার সার্ভিস সিভিল ডিফেন্স ভবনটি বুঝে নেওয়ার জন্য বারবার লিখিতভাবে তাগাদা দিয়ে যাচ্ছি। এদিকে তাড়াশ ফায়ার সার্ভিস সিভিল ডিফেন্স স্টেশনটি বিগত ৪ বছরেও চালু না হওয়ার কারণে পুরো ফায়ার সার্ভিস ভবনের আশপাশে আগাছায় ভরে উঠেছে। এর ফলে সেখানে রাতের আঁধারে মাদকসেবীদের নিরাপদ আশ্রয়ে পরিণত হলেও দেখার কেউ নেই। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা