kalerkantho

বুধবার । ২৪ জুলাই ২০১৯। ৯ শ্রাবণ ১৪২৬। ২০ জিলকদ ১৪৪০

ট্রাকচাপায় সহোদর দুই কাঠ ব্যবসায়ী হতাহত, আটক ১

শেরপুর প্রতিনিধি   

১৮ জুন, ২০১৯ ০২:০৯ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ট্রাকচাপায় সহোদর দুই কাঠ ব্যবসায়ী হতাহত, আটক ১

শেরপুর শহরের অস্টমিতলা এলাকায় ট্রাকচাপায় নিজ বাড়ির সামনে দাঁড়িয়ে থাকা কাঠ ব্যবসায়ী দুই সহোদর ভাইয়ের একজন নিহত ও আরেকজন গুরুতর আহত হয়েছে। সোমবার দিবাগত রাত ১১টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। নিহত বিপুল মিয়া (৩৫) ওই এলাকার আব্দুস সামাদ ওরফে নাহেদ মিয়ার ছেলে। আহত বড় ভাই আমিন মিয়াকে (৪২) মুমূর্ষু অবস্থায় ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। তার অবস্থা আশংকাজনক বলে জেলা হাসপাতালের চিকিৎসকরা জানিয়েছেন। এ ঘটনায় স্থানীয় জনতা ওই ট্রাক থেকে সোহেল মিয়া (১৪) নামে অপ্রাপ্ত বয়স্ক এক হেলপারকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, শেরপুর-বনগাঁ রাস্তার পাশে শহরের অস্টমীতলা এলাকায় নিজেদের দোকানের সামনে দাঁড়িয়ে কাঠমিস্ত্রি দুই ভাই ট্রলিতে করে আনা কাঠের গুড়ির চালান নামিয়ে নিজেদের মধ্যে কথাবার্তা বলছিলেন। এ সময় ময়মনসিংহ থেকে শ্রীবরদীগামী ইমাদ পরিবহনের একটি টাটা ট্রাক তাদের দুই ভাইকেই চাপা দিলে ঘটনাস্থলেই ছোট ভাই বিপুল মিয়া নিহত হয়। 

এছাড়া বড় ভাই আমিন মিয়া গুরুতর আহত হন। এ সময় স্থানীয় জনতা ওই ট্রাকের ভেতর থেকে হেলপার সোহেল মিয়াকে আটক করলেও আল আমিন নামে আরেক চালক পালিয়ে যায়। স্থানীয় লোকজন হতাহতদের উদ্ধার করে দ্রুত জেলা হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক বিপুল মিয়াকে মৃত ঘোষণা করেন। এ সময় অবস্থার অবনতি হওয়ায় মুমূর্ষু অবস্থায় আমিন মিয়াকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

শেরপুর সদর থানার ওসি আব্দুল্লাহ আল-মামুন বলেন, ট্রাকচাপায় দুই সহোদর ভাইয়ের একজন নিহত ও আরেকজন গুরুতর আহত হয়েছে। স্থানীয় লোকজন ট্রাকটির হেলপার সোহেল মিয়াকে আটক করে থানায় সোপর্দ করেছে। ওই হেলপার জানিয়েছে, আলামিন নামে তার আরেক সহযোগী ট্রাকটি চালাচ্ছিল। এ ব্যাপারে মামলার প্রক্রিয়া চলছে।

মন্তব্য