kalerkantho

শুক্রবার । ২৩ আগস্ট ২০১৯। ৮ ভাদ্র ১৪২৬। ২১ জিলহজ ১৪৪০

চুয়াডাঙ্গায় সাবেক যুগ্ম সচিবের বাড়িতে হামলা, ভাঙচুর

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি   

১৮ জুন, ২০১৯ ০১:৫০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



চুয়াডাঙ্গায় সাবেক যুগ্ম সচিবের বাড়িতে হামলা, ভাঙচুর

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সাবেক যুগ্ম সচিব ড. আব্দুস সবুরের চুয়াডাঙ্গার বাড়িতে হামলা হালিয়ে ভাঙচুর করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। অজ্ঞাত প্রায় ৫০/৬০ জন দুর্বৃত্ত ডিসি অফিসের অদূরে তাঁর বাড়িতে হামলা চালায় এবং ভাঙচুর করে বলে দাবি করেন ড. আব্দুস সবুর। রবিবার সন্ধ্যার পর এ হামলার ঘটনা ঘটে বলে উল্লেখ করেন তিনি। 

সোমবার রাত ৯টায় চুয়াডাঙ্গা প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে সাংবাদিকদের কাছে ঘটনা প্রকাশ করেন ড. সবুর। এ বিষয়ে চুয়াডাঙ্গা সদর থানায় লিখিত অভিযোগও করেছেন তিনি। 

লিখিত অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, ড. আব্দুস সবুর গত ১০ জুন ঢাকা থেকে চুয়াডাঙ্গার বাড়িতে আসেন। ১৬ জুন সন্ধ্যায় ৫০/৬০ জনের একদল দুর্বৃত্ত মোটরসাইকেলযোগে এসে তাঁর বাড়িতে হামলা চালিয়ে ভাঙচুর করে। এ সময় তিনি বাড়িতে ছিলেন না। 
হামলাকারীরা ড. সবুরের নাম উল্লেখ করে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে। দুর্বৃত্তরা ড. মো. আব্দুস সবুরকে খোঁজাখুঁজি করতে থাকে। তারা খুন-জখম করার হুমকিও দেয়। দুর্বৃত্তরা আনুমানিক ৩০ হাজার টাকার সাংসারিক জিনিসপত্র ভাঙচুর করে। চলে যাওয়ার সময় তারা বোমা হামলার হুমকি দিয়ে চলে যায়।

চুয়াডাঙ্গা সদর থানায় দায়ের করা এজাহারে ড. সবুর উল্লেখ করেছেন যে, ‘চুয়াডাঙ্গা জেলার দামুড়হুদা থানার ইব্রাহিমপুর গ্রামের মৃত খলিলুর রহমান মল্লিকের ছেলে আতিকুর রহমান মল্লিক গত ১ জুন আমার স্ত্রী আঞ্জুমানারা শিউলি রহমানের মোবাইল ফোনে ফোন করে হুমকি দেন। আতিকুর রহমান মালিক তার ভাড়াটিয়া বাহিনী দিয়ে গত রবিবারের এ ঘটনা ঘটিয়েছেন বলে সন্দেহ হয়।’

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আতিকুর রহমানদের একটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে প্রতিষ্ঠাতা অধ্যক্ষ ছিলাম আমি। আমি ওই পদ থেকে ইস্তফা দেওয়ায় আতিকুর রহমান মল্লিক এ ঘটনা ঘটিয়েছেন বলে আমি মনে করি। তার প্রতিষ্ঠান থেকে আমি টাকা আত্মসাৎ করেছি বলেও আমার নামে মিথ্যা অপবাদ দেওয়া হচ্ছে।’ 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা