kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৩ জুলাই ২০১৯। ৮ শ্রাবণ ১৪২৬। ১৯ জিলকদ ১৪৪০

গফরগাঁওয়ে বাবার কাছে মাদকাসক্ত ছেলের ক্ষমা প্রার্থনা

বাবা আমি আর মাদক সেবন করব না

গফরগাঁও (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি   

১৭ জুন, ২০১৯ ০০:১২ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বাবা আমি আর মাদক সেবন করব না

ছবি: কালের কণ্ঠ

'বাবা আমি আর মাদক সেবন করব না'। ভালো হয়ে যাব। তাবলিক জামাতের চিল্লায় চলে যাব। আমাকে ক্ষমা করে দাও।’ এভাবেই অসহায় এক বাবার হাতে পায়ে ধরে ক্ষমা প্রার্থনা করে মাদকাসক্ত ছেলে। ছেলের প্রার্থনায় বাবাও ছেলেকে ক্ষমা করে দেন। 

ময়মনসিংহের গফরগাঁও থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ আবদুল আহাদ খানের কার্যালয়ে রবিবার সন্ধ্যায় এ ঘটনা ঘটে। এ সময় অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ আবদুল আহাদ খানসহ পুলিশ কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

থানা সূত্রে জানা যায়, উপজেলার বখুরা গ্রামের আব্দুল কাদেরের ছেলে পাবেল মিয়া (২২) দীর্ঘদিন যাবৎ মাদকাসক্ত। পাবেল মাদকের টাকার জন্য বাবা-মার সঙ্গে খারাপ আচরণ করতো। এক পর্যায়ে বাড়িতে ভাঙচুরসহ বাবা-মাকে অত্যাচার শুরু করে। এতে অতিষ্ঠ হয়ে আব্দুল কাদের ছেলের বিরুদ্ধে থানায় লিখিত অভিযোগ দেন।

পুলিশ রবিবার বিকালে পাবেলকে ধরে থানায় নিয়ে আসেন। তবে আব্দুল কাদের ছেলের বিরুদ্ধে অভিযোগ দিলেও মামলা করতে অনীহা প্রকাশ করেন। এ অবস্থায় গফরগাঁও থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ আবদুল আহাদ খান সন্ধ্যায় মাদকাসক্ত পাবেলকে তার কার্যালয়ে ডেকে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করলে সে আর ভবিষ্যতে আর মাদক সেবন করবে না বলে জানায়। 

এ সময় পাবেল তার বাবা আব্দুল কাদেরের হাতে পায়ে ধরে কান্নাকাটি করে ক্ষমা প্রার্থনা জানায়। পরে থানা পুলিশের কাছে ‘ভবিষ্যতে আর মাদক সেবন করবে না, ভালো হয়ে যাবে এবং তাবলিক জামাতের চিল্লায় চলে যাবে মর্মে মুচলেকা দিলে পাবেলকে তার বাবার জিম্মায় ছেড়ে দেওয়া হয়।

আব্দুল কাদের বলেন, মাদকাসক্ত হয়ে ছেলেটি নষ্ট হয়ে গেছে। অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে ছেলের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দিয়েছিলাম। ছেলে আর মাদক সেবন করবে না, ভালো হয়ে যাবে প্রতিজ্ঞা করায় তাকে ক্ষমা করেছি।

গফরগাঁও থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ আবদুল আহাদ খান বলেন, ছেলেটি ভুল বুঝতে পেরে অসহায় বাবার হাতে পায়ে ধরে ক্ষমা প্রার্থনা করেছে এবং ভবিষ্যতে আর মাদক সেবন করবে না, ভালো হওয়ার জন্য চিল্লায় চলে যাবে মর্মে মুচলেকা দেওয়ায় তার বাবার জিম্মায় ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা