kalerkantho

রবিবার । ২১ জুলাই ২০১৯। ৬ শ্রাবণ ১৪২৬। ১৭ জিলকদ ১৪৪০

হাওর ও চর উন্নয়ন ইনস্টিটিউট উন্নয়নে অবদান রাখবে : পরিকল্পনামন্ত্রী

বাকৃবি প্রতিনিধি   

১৬ জুন, ২০১৯ ১৪:৪৪ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



হাওর ও চর উন্নয়ন ইনস্টিটিউট উন্নয়নে অবদান রাখবে : পরিকল্পনামন্ত্রী

বর্তমানে মিঠা পানির অনেক মাছই হারিয়ে যাচ্ছে। হয়তো নিকট ভবিষ্যতে অন্যান্য দেশের মতো খাঁচায় মৎস্য চাষের দিকে সম্পূর্ণরূপে ঝুঁকে পড়তে হতে পারে। আর এ ধরনের পরিস্থিতি দূর করার জন্য আমরা হাওর এলাকায় প্রচুর পরিমাণে পোনা মাছ ছাড়ার ব্যবস্থাও করেছি। আর হাওর ও চর উন্নয়নে যেকোনো প্রকল্প পাস করা হবে যদি তা জনকল্যাণমূলক ও ভূমিহীন কৃষকের জন্য লাভজনক হয়। হাওর ও চর উন্নয়ন ইনস্টিটিউট কৃষক ও জাতির উন্নয়নে অবদান রাখবে বলে আশা করছি।

রবিবার (১৬ জুন) দুপুর ১২টার দিকে কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন বাংলাদেশে (কেআইবি) আয়োজিত 'হাওর ও চর উন্নয়ন আপনার জানা আপনার ভাবনা' শীর্ষক সেমিনারে এসব কথা বলেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান। সেমিনারটি আয়োজন করে বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বাকৃবি) হাওর ও চর উন্নয়ন ইনস্টিটিউট।

সেমিনারে বাকৃবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. লুৎফুল হাসানের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান। সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পরিবেশমন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দীন আহমেদ, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী আশরাফ আলী খান খসরু, পরিকল্পনা কমিশনের সদস্য ও সিনিয়র সচিব অধ্যাপক ড. শামসুল আলম। এ ছাড়াও বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন অনুষদের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা সেমিনারে উপস্থিত ছিলেন।

সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন হাওর ও চর উন্নয়ন ইনস্টিটিউটের পরিচালক অধ্যাপক ড. মো. রকিবুল ইসলাম খান। মূল প্রবন্ধে বাংলাদেশের হাওর ও চর অঞ্চলে শস্য উৎপাদনের প্রধান প্রধান সমস্যা, সম্ভাবনা ও প্রতিকারের কৌশল নিয়ে আলোচনা করেন।

উল্লেখ্য, হাওর ও চর এলাকার কৃষি পরিবেশের ওপর ধারবাহিক গবেষণা, প্রযুক্তি উন্নয়ন ও কৃষকের জীবন-জীবিকার উন্নয়নের লক্ষ্যে গত বছর ২২ জুলাই হাওর ও চর উন্নয়ন ইনস্টিটিউটের উদ্বোধন করেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ। ওই ইনস্টিটিউট থেকে হাওর ও চর এলাকায় ফসল ধারা ও খামার ব্যবস্থার ওপর এমএস, পিএইচডি ও পোস্ট গ্রাজুয়েট ডিপ্লোমা প্রদান করা হবে। এ ছাড়াও কৃষক, বিত্তহীন পুরুষ ও নারীদের আয় বৃদ্ধি ও কর্মসংস্থানের জন্য লাগসই প্রযুক্তি বিস্তারসহ বিভিন্ন সহায়তা প্রদান করা হবে। এককথায় হাওর ও চরের কৃষকের সাথে গবেষকদের মধ্যে সেতুবন্ধন হিসেবে কাজ করবে হাওর ও চর উন্নয়ন ইনস্টিটিউট।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা