kalerkantho

শনিবার । ২০ জুলাই ২০১৯। ৫ শ্রাবণ ১৪২৬। ১৬ জিলকদ ১৪৪০

মহাসড়কে মোটরসাইকেল যোগে বেড়েছে ছিনতাই

চান্দিনা (কুমিল্লা) প্রতিনিধি   

১৬ জুন, ২০১৯ ০১:৫৫ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



মহাসড়কে মোটরসাইকেল যোগে বেড়েছে ছিনতাই

ব্যস্ততম ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কুমিল্লার চান্দিনা অংশে বেড়েছে ছিনতাই। দিন কিবা রাত, যেকোনো মুহূর্তেই ছিনতাইকারীদের কবলে পরে সর্বস্ব খোয়াতে হচ্ছে পথচারী ও যাত্রীদের। দুপুর থেকে সন্ধ্যা রাত পর্যন্ত ছিনতাইয়ের ঘটনাই ঘটছে বেশি। আর ছিনতাই কাজে ব্যবহার করা হচ্ছে মোটরসাইকেল। 

মহাসড়কের কুমিল্লার চান্দিনা উপজেলার তীরচর থেকে কুটুম্বপুর এবং মাধাইয়া থেকে হাড়িখোলা পর্যন্ত এলাকায় ছিনতাইকারীদের তৎপরতা বেশি দেখা যায়। এ ছাড়া দাউদকান্দি উপজেলার জিংলাতলী থেকে ইলিয়টগঞ্জ পর্যন্ত এবং বুড়িচং উপজেলার নিমসার থেকে সৈয়দপুর পর্যন্ত স্থান গুলোতেই বেশি তৎপর ছিনতাইকারী চক্র।

ডাকাতি সংগঠিত হওয়ার পর অধিকাংশ ঘটনা আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর জানা থাকলেও ছিনতাইয়ের অধিকাংশ ঘটনাই তাদের অজানা। ছিনতাইয়ের ঘটনায় বেশি ক্ষতিগ্রস্ত না হলে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর দারস্থ হচ্ছে না ভুক্তভোগীরা।

চান্দিনার ছয়ঘড়িয়া এলাকার গৃহবধূ সুমাইয়া মজুমদার। স্বামীর সঙ্গে ঢাকাতেই বসবাস করেন তিনি। ঈদের ছুটিতে এসেছেন গ্রামের বাড়িতে। গত ৯ জুন বিকেলে তিনি রিকশা যোগে চান্দিনা আসছিলেন। তিনি মহাসড়ক হয়ে হাড়িখোলা পৌঁছতেই একটি মোটরসাইকেল যোগে দুই ছিনতাইকারী তার হাত থেকে ভ্যানিটি ব্যাগটি ছিনিয়ে নেয়। এতে তার ২টি মোবাইল ফোন ও নগদ ২৪ হাজার টাকা খোয়া যায়। পরে তিনি চান্দিনা থানা পুলিশের স্মরণাপন্ন হন। 

১০ জানু (সোমবার) সন্ধ্যার পর কুমিল্লার রমজান আলী চান্দিনায় কাজ শেষ করে নিজ বাসা কুমিল্লায় যাওয়ার জন্য চান্দিনা-বাগুর বাসস্টেশনে ফুটওভার ব্রিজ দিয়ে রাস্তা পারাপার হচ্ছিলেন। তিনি ওই ফুটওভার ব্রিজে উঠার পর তিনজন ছিনতাইকারী পেটে ছুরি ঠেকিয়ে ৮ হাজার টাকা ও মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নেন।

এর আগে ৭ জুন (শুক্রবার) বিকাল ৪টায় মোটরসাইকেল যোগে ইলিয়টগঞ্জ থেকে চান্দিনায় আসছিলেন দেবীদ্বার উপজেলার নবিয়াবাদ গ্রামের রবিউল আজম। তিনি তীরচর এলাকায় পৌঁছার পর পেছন থেকে ২টি মোটরসাইকেল যোগে চারজন ছিনতাইকারী তাকে আটক করে ছিনিয়ে নেয় ২টি মোবাইল ফোন ও নগদ ১৭০০ টাকা।

গত ১৭ এপ্রিল সন্ধ্যা ৭টার দিকে মোটরসাইকেল যোগে ময়নামতি থেকে চান্দিনায় আসছিলেন ব্যবসায়ী আব্দুর রহিম। তিনি মদিনা পেট্রল পাম্প অতিক্রম করার পর ২টি মোটরসাইকেল যোগে চারজন ছিনতাইকারী হঠাৎ তার মোটরসাইকেলকে চাপিয়ে রাস্তার পাশে ফেলে দেওয়ার চেষ্টা করছিলেন। 

এক পর্যায়ে তিনি নিয়ন্ত্রণ রাখতে না পেরে মোটরসাইকেলটি থামাতেই অপর দুই মোটরসাইকেলে থাকা ছিনতাইকারী সদস্যরা তাকে মোটরসাইকেল থেকে নামিয়ে এলোপাতাড়ি কিল-ঘুষি দিয়ে তার সঙ্গে থাকা ব্যাগ ও মানি ব্যাগটি ছিনিয়ে নিয়ে দ্রুত পালিয়ে যায়।

এ ব্যাপারে হাইওয়ে পুলিশ কুমিল্লা অঞ্চলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. রহমত উল্লাহ জানান, সম্প্রতি মোটরসাইকেলযোগে ছিনতাইয়ের ঘটনাটি আমাদের নজরে এসেছে। মহাসড়কের আমরা অন্যান্য যানবাহনের মতো মোটরসাইকেলও নজরে এনেছি। আমাদের নিয়মিত অভিযানে ছিনতাই চক্রগুলোকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

তিনি আরো বলেন, এমনিতেই ফুটওভার ব্রিজগুলোতে পথচারীদের উঠানো যাচ্ছে না। এখন যদি ওইসব ফুটওভার ব্রিজে যদি ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটে তাহলে তো পথচারীদের উঠানোই যাবে না। প্রতিটি ফুটওভার ব্রিজে নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে আমরা ব্যবস্থা গ্রহণ করবো। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা