kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৫ জুন ২০১৯। ১১ আষাঢ় ১৪২৬। ২২ শাওয়াল ১৪৪০

এলাকায় মাইকিং করে সালিশ

চেক জালিয়াতির অভিযোগে সুদারু মুকুল আটক

বদলগাছী-মহাদেবপুর (নওগাঁ) প্রতিনিধি   

১৩ জুন, ২০১৯ ০০:৩৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



চেক জালিয়াতির অভিযোগে সুদারু মুকুল আটক

ছবি: কালের কণ্ঠ

নওগাঁর বদলগাছী ভগবানপুর গ্রামের মৃত এচাহাক আলীর ছেলে মুকুল হোসেনকে একাধিক চেক জালিয়াতির অভিযোগে তাকে আটক করে জনতা। পরে তাকে ১টি ঘরে আটকে রেখে সন্ধ্যায় সালিশ বৈঠক বসে গ্রামে। এলাকায় মাইকিং করে সালিশ ডাকা হয় গ্রামে। এ ঘটনায় এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি করেছে।

গ্রামবাসী জানায়, মুকুল দীর্ঘদিন থেকে সুদের ব্যবসা করে। কেউ যদি মুকুলের কাছ থেকে ২০ হাজার টাকা ঋণ নেয় তাহলে ঋণের পরিবর্তে ঋণ গৃহিতার নিকট থেকে ব্যাংক অ্যাকাউন্টের ফাঁকা চেক নেয়। ঋণসহ সুদের টাকা পরিশোধ করতে বিলম্ব হলে ২০ হাজার টাকার পরিবর্তে ১০ লাখ টাকা ঋণ নিয়েছে মর্মে ঋণ গ্রহিতার ফাঁকা চেক পূরণ করে ব্যাংকে ডিজঅনার করে তার বিরুদ্ধে আদালতে ১০ লাখ টাকার মামলা করেন। 
এভাবে সে অসংখ্য লোকজনকে হয়রানি করেছে। মুকুল আবার তিনটি চেক ডিজঅনার করে তাদেরকে উকিল নোটিশ দেওয়ায় গ্রামবাসীর মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। অবশেষে গ্রামবাসীর অনুরোধে ভগবানপুর গ্রামের সাবেক শ্রমিক নেতা শাহিন বদলগাছী ব্রিজ সংলগ্ন থেকে বুধবার বিকালে মুকুলকে আটক করে সিএনজি যোগে ভগবানপুর গ্রামে নিয়ে এসে শাহিনের পরিত্যক্ত ঘরে আটক করে রাখে। 

বুধবার সন্ধ্যায় তথ্য সংগ্রহকালে নন্দাহার গ্রামের আমিনুর হোসেন বলেন, ২টি ফাকা চেক দিয়ে ৭০ হাজার টাকা ঋণ নেয় মুকুলের কাছ থেকে। তার ১টি চেকে ১৪ লাখ টাকার মামলা দিয়েছে। মুকুলকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে সে জানায়, তার সমবায় সমিতি থেকে ৫ লাখের অধিক ঋণ নিয়েছে আমিনুর। সুদে আসলে হয়েছে ১৪ লাখ টাকা। বারফালা গ্রামের শাজাহান জানায়, মুকুল ফাকা চেক নিয়ে ৩৫ হাজার টাকা ঋণ দেয় তাকে। মুকুল তার বিরুদ্ধে ১০ লাখ টাকার মামলা করেছে। 

এ বিষয়ে মুকুল জানায়, শাজাহান ৪ লাখের অধিক টাকা ঋণ নিয়েছে তা সুদে আসলে হয়েছে ১০ লাখ টাকা হয়েছে। সাবেক শ্রমিক নেতা শাহিন জানায়, গ্রামবাসীর অনুরোধে মুকুলকে আমি আটক করেছি অন্যথায় এলাকার মানুষ অধিক ক্ষতিগ্রস্ত হবে। এখানে রাতে সালিশ হবে উপজেলা চেয়ারম্যানসহ স্থানীয় চেয়ারম্যান উপস্থিত থাকবে। 

এছাড়া অর্ধশতাধিক গ্রামবাসীর সঙ্গে কথা বললে তারা জানায়, মুকুল বারবার চেক জালিয়াতি করে মানুষকে হয়রানি করছে তার বিচার হওয়া উচিত। 

মন্তব্য