kalerkantho

বুধবার । ২৬ জুন ২০১৯। ১২ আষাঢ় ১৪২৬। ২৩ শাওয়াল ১৪৪০

জয়পুরহাট-সান্তাহার স্টেশনে যাত্রা বিরতির দাবিতে

অবরোধের মুখে দাঁড়িয়ে গেল ‘পঞ্চগড় এক্সপ্রেস’

আক্কেলপুর (জয়পুরহাট) প্রতিনিধি   

২৬ মে, ২০১৯ ০০:০৯ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



অবরোধের মুখে দাঁড়িয়ে গেল ‘পঞ্চগড় এক্সপ্রেস’

ছবি: কালের কণ্ঠ

জয়পুরহাটের আক্কেলপুরে পঞ্চগড়-ঢাকা দেশের দীর্ঘতম এ রেলপথে চালু হওয়া স্বল্প বিরতির 'পঞ্চগড় এক্সপ্রেস' ট্রেনটি জয়পুরহাট-সান্তাহারে যাত্রা বিরতির দাবিতে অবরোধ করে এই ট্রেনটি থামিয়ে দেয় উপজেলাবাসী। শনিবার বিকেল ৫টা ১৮ মিনিটে পঞ্চগড় থেকে ঢাকার উদ্দেশে ছেড়ে আসা ট্রেনটি আক্কেলপুর রেল স্টেশনে দাড় করানো হয়। 

এর আগে শনিবারে সকালে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বাঁশিতে ফুঁ দিয়ে ও পতাকা নেড়ে ট্রেনটির উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এর পরেই পঞ্চগড় এক্সপ্রেস ঢাকার উদ্দেশে বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল ইসলাম রেলওয়ে স্টেশন থেকে যাত্রা শুরু করে।

জানা গেছে, ‘পঞ্চগড় এক্সপ্রেস’ ট্রেন চালু হওয়ার কয়েকদিন আগে থেকে জয়পুরহাট ও সান্তাহার রেল স্টেশনে বিভিন্ন কর্মসূচি দিয়েছিল স্থানীয় লোকজন। অবরোধ করা হয়েছিল বিভিন্ন আন্তঃনগর ট্রেন। এরিই ধারাবাহিকতায় আজ শনিবার ওই ট্রেনটি উদ্বোধনের দিনে আক্কেলপুর সচেতন প্রজন্মর আহবানে রেলপথ অবরোধ কর্মসূচিতে প্রায় পাঁচশত লোকজন অংশগ্রহণ করেন। ট্রেন আসার আগ মুহূর্তে লাল পতাকা হাতে নিয়ে কয়েকজন যুবক রেলের উপরে দাঁড়িয়ে যায়। তার পেছনে অবরোধের ব্যনার নিয়ে দাঁড়িয়ে থাকে স্থানীয় লোকজন। রেলওয়ের ওপর লোকজন দাড়িয়ে থাকার কারণে ওই ট্রেন চালক ট্রেনটি দার করায়। কিছু সময় বিরতির পরে ট্রেনটি আবার ঢাকার উদ্দেশে ছেড়ে যায়।    

আক্কেলপুর রেল কর্তৃপক্ষ জানায়, পঞ্চগড়- ঢাকা দ্রুতগতির পঞ্চগড় এক্সপ্রেস ট্রেনটি ৫৯৩ কিলোমিটার পথ পাড়ি দিবে ১০ ঘণ্টায়। ট্রেনটি প্রতিদিন ১ টা ১৫ মিনিটে পঞ্চগড় থেকে ঢাকার উদ্দেশ্যে ছেড়ে যাবে। আর  রাত ১০টায় ৩৫ মিনিটে তা ঢাকায় পৌঁছবে। আবার রাত ১২টা ১০ মিনিটে ঢাকা থেকে ছেড়ে সকাল ৯টা ৪০ মিনিটে পঞ্চগড় পৌঁছবে। দীর্ঘ এই যাত্রাপথে ঠাকুরগাঁও, দিনাজপুর, পাবর্তীপুর ও ঢাকা বিমানবন্দর ষ্টেশনে ট্রেনটি থামবে। ঢাকা থেকে আসার পথেও এসব স্টেশনেই থামবে।

আক্কেলপুর সচেতন প্রজন্মর আহবায়ক কামরুল হাসান কালের কণ্ঠকে বলেন, আক্কেলপুর রেল স্টেশনে সকল আন্তঃনগর ট্রেনের যাত্রা বিরতি আছে। যেহেতু ‘পঞ্চগড় এক্সপ্রেক্স’ ট্রেনটি স্বল্প বিরতি দিয়ে চলাচল করবে। সেহেতু আমরা এই ট্রেনটি আমাদের নিজ জেলা জয়পুরহাট রেল স্টেশনে আথবা পাশেই সান্তাহার রেল জংশনে যাত্রা বিরতির জন্য স্থানীয় লোকজনদের সঙ্গে নিয়ে আমাদের আজকের এই অবরোধ কর্মসূচি। আমরা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে জোর দাবি জানাচ্ছি অবিলম্বে এই দুই স্টেশনের মধ্যে যেকোনো একটিতে যেন ‘পঞ্চগড় এক্সপ্রেক্স’ ট্রেনটির যাত্রা বিরতি দেওয়া হয়।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা