kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২৭ জুন ২০১৯। ১৩ আষাঢ় ১৪২৬। ২৩ শাওয়াল ১৪৪০

বেতাগী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স: তিন বছর ধরে তালাবদ্ধ এক্স-রে কক্ষ

বেতাগী (বরগুনা) প্রতিনিধি   

২৫ মে, ২০১৯ ১৯:২৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বেতাগী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স: তিন বছর ধরে তালাবদ্ধ এক্স-রে কক্ষ

বরগুনার বেতাগী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে তিন বছর ধরে তালাবদ্ধ অবস্থায় রাখা হয়েছে এক্স-রে কক্ষটি। প্রয়োজনীয় দক্ষ প্রযুক্তিবিদের অভাবে তিন বছর ধরে এক্স-রে মেশিন বন্ধ রাখা হয়েছে। দিনের পর দিন বন্ধ থাকায় রোগীদের দুর্ভোগ পোহাতে হতে হচ্ছে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, এক্স-রে মেশিনের কক্ষটি বন্ধ রয়েছে। কক্ষের সামনে মরিচা ধরা তালা ঝুলছে। দরজা জুড়ে রয়েছে মাকড়শার জাল। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক পার্শ্ববর্তী একটি ডায়াগনস্টিক সেন্টারের রেডিও গ্রাফার জানান, এক্স-রে মেশিনটি দীর্ঘদিন ব্যবহার না হওয়ায় কারিগারি সমস্যা হতে পারে।

এদিকে দক্ষ প্রযুক্তিবিদের অভাবে এক্স-রে মেশিনটি বন্ধ থাকায় যন্ত্রপাতিতে নানা ধরনের ত্রুটি দেখা দিতে পারে। তবে কি অবস্থায় রয়েছে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স কর্তৃপক্ষ কিছুই বলতে পারছেন না। এক্স-রে মেশিন পরিচালনার জন্য রেডিও গ্রাফার নেই দীর্ঘ তিন বছর ধরে।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্র জানায়, ২০১৬ সালের ১০ মে কর্মরত রেডিও গ্রাফার আবুল হোসেনকে  বেতাগী থেকে জেলা সদর বরগুনা বদলি করা হয়। তখন থেকে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এ পদটি শূন্য রয়েছে। এর ফলে ১টি পৌরসভাসহ ৭টি ইউনিয়নের দেড় লক্ষাধিক জনসংখ্যা অধ্যুষিত এ উপজেলার দরিদ্র্য জনগোষ্ঠিকে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের বাইরে গিয়ে অতিরিক্ত ফি দিয়ে এক্স-রে কার্যক্রম পরিচালিত করতে হয়।

ভুক্তভোগী রোগী মো. সালাউদ্দিন বাপ্পি অভিযোগ করেন, অন্যত্র গিয়ে এক্স-রে করানোর কারণে আমাদের সময় ও অর্থ উভয়ই বেশি অপচয় হচ্ছে এবং পড়তে হচ্ছে নানা ভোগান্তিতে।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আ ন ম মঈনুল ইসলাম বলেন, দক্ষ রেডিও গ্রাফারের অভাবে এক্স-রে মেশিনটি বন্ধ থাকার খবর পেয়ে শুন্যপদ পুরণের ব্যাপারে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নিকট লিখিতভাবে জানিয়েছেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা