kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৫ জুন ২০১৯। ১১ আষাঢ় ১৪২৬। ২২ শাওয়াল ১৪৪০

বগুড়ায় বিএনপির দুই পক্ষ মুখোমুখি ধাক্কাধাক্কি

নিজস্ব প্রতিবেদক, বগুড়া   

২৩ মে, ২০১৯ ০২:১৮ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



বগুড়ায় বিএনপির দুই পক্ষ মুখোমুখি ধাক্কাধাক্কি

বগুড়ায় বিএনপির বিবদমান দুই পক্ষ মুখোমুখি অবস্থান নিলে ধাক্কাধাক্কির ঘটনা ঘটেছে। গতকাল বুধবার বিকেলে জেলা বিএনপি কার্যালয়ের সামনে এ ঘটনা ঘটে। এ সময় পুলিশ উভয় পক্ষের মাঝখানে অবস্থান নিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করে। পরে বিএনপির একাংশ দলীয় কার্যালয়ের সামনে সংবাদ সম্মেলন করে সদ্যোঘোষিত আহ্বায়ক কমিটি বাতিল এবং বহিষ্কার করা নেতাকর্মীদের দলে ফিরিয়ে নেওয়ার দাবি জানায়।

সম্প্রতি বগুড়া জেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটি গঠনকে কেন্দ্র করে দলের নেতাকর্মীরা বিভক্ত হয়ে পড়ে। আহ্বায়ক কমিটিতে স্থান না পাওয়া নেতাকর্মীরা এই কমিটি বাতিলের দাবিতে দলীয় কার্যালয়ে তালা ঝুলিয়ে দিলে বিএনপি, যুবদল, ছাত্রদল, স্বেচ্ছাসেবক দল ও জিসাসের ১৬ জন নেতাকে বহিষ্কার করা হয়। 

বহিষ্কার করা নেতাকর্মীরা গতকাল বিকেলে দলীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনের ডাক দেয়। এ সময় আহ্বায়ক কমিটির নেতাকর্মীরা দলীয় কার্যালয়ের সামনে অবস্থান নিলে উভয় পক্ষের মধ্যে বাগিবতণ্ডা ও ধাক্কাধাক্কি শুরু হয়। পুলিশ উভয় পক্ষের মাঝখানে অবস্থান নিয়ে উভয় পক্ষকে হটিয়ে দিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করে। পরে আহ্বায়ক কমিটির কজন নেতা বহিষ্কার করা নেতাদের ডেকে সমঝোতা বৈঠকে বসার প্রস্তাব দেন। তারা এই প্রস্তাবে রাজি হলে আহ্বায়ক কমিটির নেতাকর্মীরা দলীয় কার্যালয়ের সামনে থেকে চলে যায়। পরে বহিষ্কার করা অংশের নেতারা কার্যালয়ের সামনে সংবাদ সম্মেলন করেন।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন জেলা জিসাসের বহিষ্কার করা সাধারণ সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন পশারী হিরু। তিনি ঘোষিত আহ্বায়ক কমিটির আহ্বায়ক জি এম সিরাজকে আওয়ামী লীগের এজেন্ট এবং সংস্কারপন্থী উল্লেখ করে ওই কমিটি বাতিলের দাবি জানান। একই সঙ্গে সম্প্রতি দল থেকে বহিষ্কার করা ১৬ জন নেতাকে দলে ফিরিয়ে নেওয়ার দাবি জানান।

সংবাদ সম্মেলনে বহিষ্কার হওয়া জেলা বিএনপির সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক পরিমল কুমার দাস বলেন, যেসব নেতাকর্মী বিএনপির দুর্দিনে মাঠে ছিল, আহ্বায়ক কমিটিতে তাদের স্থান হয়নি। এ কারণে তারা প্রতিবাদ করলে দল থেকে তাদের বহিষ্কার করা হয়। 

জেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট সাইফুল ইসলামের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি কালের কণ্ঠকে বলেন, দল থেকে যাদের বহিষ্কার করা হয়েছে তারাও এই দলেরই লোক। তাদের বহিষ্কারের বিষয়টি সাময়িক। কেন্দ্রীয় নেতাদের সঙ্গে তাদের বিষয়ে কথা হয়েছে। ওই নেতাদের সঙ্গে বসে বিষয়টির সমাধান করা হবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা