kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৫ জুন ২০১৯। ১১ আষাঢ় ১৪২৬। ২২ শাওয়াল ১৪৪০

নাটোরে ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর ধান কেটে নেওয়ার অভিযোগ

নাটোর প্রতিনিধি   

২৩ মে, ২০১৯ ০২:১০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নাটোরে ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর ধান কেটে নেওয়ার অভিযোগ

নাটোর সদরে বিষ্ণু রানী নামের ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর এক সদস্যের লাগানো ধান কেটে নেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। গতকাল বুধবার ভোরে সদর উপজেলার পিরজীপাড়া মৌজার শংকরভাগ মামুদপাড়া বিলে এ ঘটনা ঘটে। বিষ্ণু রানীর ছেলে ধান কাটতে বাধা দিলে তাঁকে প্রাণনাশেরও হুমকি দেওয়া হয়। এ ঘটনায় নাটোর সদর থানায় অভিযোগ জানানো হয়েছে।

মামলার অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, ২০০৭ সালে নাটোর সদরের শংকরভাগ আদিবাসী পল্লীর বাসিন্দা শুটকা তেলীর স্ত্রী বিষ্ণু রানী প্রতিবেশী মৃত মতিলাল তেলীর কাছ থেকে সাড়ে ১৩ শতাংশ জমি কেনেন। অন্যদিকে উপজেলার বাসুপাড়া গ্রামের মৃত আখেরের ছেলে ও মামলার বিবাদী আব্দুস সামাদ শংকরভাগ গ্রামের বাবলু মণ্ডলের কাছ থেকে একই দাগে ২৫ শতক জমি কেনেন। গতকাল ভোরে আব্দুস সামাদ ও তাঁর লোকজন শুটকা ও বিষ্ণু রানীর জমির ধান কেটে নিয়ে যায়। এ সময় বাধা দিলে মিঠুন তেলী ও তাঁর পরিবারের সদস্যদের হুমকি দেওয়া হয়। এ ঘটনায় দুপুরে নাটোর সদর থানায় অভিযোগ জানানো হয়।

মিঠুন কুমার তেলী বলেন, ‘আগেও বিবাদ হলে এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিরা সালিসি বৈঠকের মাধ্যমে আমাদের কাছে ওই জমি বুঝিয়ে দেয়। তবে আব্দুস সামাদ সালিসের সেই রায় না মানায় বর্তমানে তা আদালতে বিচারাধীন। আমাদের সব কাগজপত্র বৈধ। মামলায় আমরাই জিতব জেনে আব্দুস সামাদ জোর করে আমাদের লাগানো ধান কেটে নিয়ে গেছে। আমরা এর বিচার চাই।’

মামলার বিবাদী আব্দুস সামাদ বলেন, আদালতেই দেখা যাবে জমি কার!

এ বিষয়ে নাটোর সদর থানার ওসি কাজী জালাল উদ্দিন জানান, বিষয়টি জেনে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা